রিকশাচালককে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিলেন মালিক

বাংলারজমিন

বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি | ১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার
নাম মো. আবদুল হালিম। রিকশা চালানো তার একমাত্র পেশা। দৈনিক দুইশ’ টাকায় ভাড়ায় চালাতেন রিকশা । মালিকের হাতে জমার  টাকা বুঝিয়ে দিয়ে  অবশিষ্ট যা থাকে ওই টাকায় চলে তার সংসার। অসুস্থ থাকায় দুইদিন রিকশা চালাতে পারেনি  হালিম। রিকশা চালাতে না পারলেও জমার টাকা পরিশোধ বাধ্যতামূলক। ওই দুইদিনের জমার ৪শ’  টাকা বকেয়া পরিশোধ না করায় রিকশার মালিক শফুরউদ্দিন শপ্পা তার ছেলেকে নিয়ে দিনমজুর চালককে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে দু’হাত ও দু’পা ভেঙে  রাস্তায় ফেলে দেয়। এ মধ্যযুগীয় অমানুষিক নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটেছে বন্দরের মালিভিটা গ্রামে।
সোমবার রাতে হালিমের হাত-পায়ের অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। স্থানীয় দি বারাকাহ্‌ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে রিকশাচালক হালিম। এ ঘটনায় গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করলেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে বলে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে চেষ্টা তদবির চালিয়ে যাচ্ছে শফুরউদ্দিন।
শফুরউদ্দিন জানান, আমার রিকশা চুরি করে নিয়ে গেছে। এজন্য তাকে মেরেছি। মেরেছি বলেই স্থানীয়ভাবে বিচার সালিশ হবে। মাতবরদের পরামর্শে আমি তার চিকিৎসার চালিয়ে যাচ্ছি। বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহীন মণ্ডল জানান, এ ঘটনায় কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইননুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শফুরউদ্দিন শপ্পার বিরুদ্ধে বন্দর থানায় চাঁদাবাজি, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও জালিয়াতি মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘এর জন্য অপেক্ষাতো করতেই হবে’

কোথাও বাবাকে খুঁজে পাননি নাসরিন

যমজ সন্তান মর্গে এলো বাবাকে খুঁজতে

খালেদা তখন কী করছিলেন?

শ্রদ্ধা ভালোবাসায় অমর একুশে পালিত

রায় লিখুন বাংলায়, যাতে মানুষ বোঝে: প্রধানমন্ত্রী

বাবাকে খুঁজছে রাফিন

চারদিন পরই ছিল দু’জনের চূড়ান্ত পরীক্ষা

লিজার এজাহার ব্যবসায়ীদের জিডি

তিন জার্মান সাংবাদিকসহ আহত ৬

যেভাবে বিদেশে পাচার হচ্ছে অর্থ

শামিমাকে বাংলাদেশে প্রবেশের অনুমতি দেয়ার প্রশ্নই ওঠে না

ঢামেকের বার্ন ইউনিটে কাতরাচ্ছেন ৯ জন

আগুনের লেলিহান শিখার মধ্যেও অক্ষত মসজিদ

বোনের বিয়ের বাজার করা হলো না রোহানের

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর জন্য নামেননি স্বামীও