ভারতে একটি পরিবারের ১১ জনের গণ আত্মহত্যা

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১ জুলাই ২০১৮, রোববার
একজন, দুইজন নয়, একসঙ্গে একটি পরিবারের ১১ জনের গণ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে দিল্লির বুখারি এলাকায়। প্রতিবেশিদের কাছে খবর পেয়ে রবিবার সকালে পুলিশ ঘরের দরজা ভেঙ্গে দেখে ১১ জনের ঝুলন্ত লাশ। প্রত্যেকের চোখ ও মুখ কাপড়ে বাঁধা ছিল। হতবাক হয়ে যান পুলিশ কর্তারাও। রবিবার সকালে এমনই ঘটনার সাক্ষী হল বুখারি। জানা গেছে এরা সকলেই একটি পরিবারের।
মৃতদের মধ্যে ৫টি শিশু রয়েছে। কোনও আত্মহত্যার নোট পাওয়া যায়নি। পুলিশ লাশগুলি ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে জানিয়েছে, এটা মনে করা হচ্ছে গণ আত্মহত্যার ঘটনা। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, ২০ বছর ধরে বুখারি এলাকার ২৪ সন্ত নগরের দোতলা বাড়িতে থাকত ওই পরিবারটি। দুই ভাই ললিত এবং ভুবনেশ্বর তাদের পরিবার নিয়ে ওই বাড়িতে থাকতেন। সঙ্গে থাকতেন তাদের মা, এক বিধবা বোন। তাদের আসল বাড়ি রাজস্থানে। পারিবারিক মুদির দোকানের ব্যবসা রয়েছে ললিত-ভুবনেশ্বরদের। এ ছাড়াও বড় ভাই ললিতের একটি আসবাবের দোকানও ছিল বাড়ির নীচেই। প্রতিবেশিরা জানিয়েছেন, দুই ভাই এক সঙ্গেই থাকতেন। তাদের পরিবারে কোনও আর্থিক অস্বচ্ছলতা ছিল বলে কোনও দিনই মনে হয়নি। এমনকি, পারিবারিক দ্বন্দ্বের কোনও ঘটনাও শোনা যায়নি। পরিবারটি খুব মিশুক ছিল বলেও জানিয়েছেন তারা। পুলিশ জানিয়েছে, ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। পাশাপাশি খুন না আত্মহত্যা সেই বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আইসিইউতে রাজধানী

ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টির চক্রান্ত করছে বিএনপি

ওয়ান ইলেভেনের বেনিফিশিয়ারি আওয়ামী লীগ

যেভাবে ঢাকার মেরামত সম্ভব

গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার ফারিয়া রিমান্ডে

৪০ লাখ বাংলাভাষী হবে বৃহত্তম রাষ্ট্রবিহীন জনগোষ্ঠী!

ইমরান খানই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

মওদুদের বাড়ি ঘেরাও করে রাখায় মির্জা ফখরুলের নিন্দা

বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য ও আন্দোলনের খসড়া রূপরেখা তৈরি

আত্মমর্যাদা ও মানবাধিকারের স্বপক্ষে একক কণ্ঠস্বর

ঈদের আগে ছাত্রদের মুক্তি দিন: ড. কামাল

‘কার কাছে গেলে ছেলেকে ফেরত পাবো’

বাজপেয়ীকে শেষ বিদায়

পশুবোঝাই ট্রাক ‘ছিনতাই’ শঙ্কায় সিলেটের বেপারিরা

ভোগান্তি মাথায় নিয়ে ঈদযাত্রা

মওদুদ আহমদকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ