মেইড ইন বাংলাদেশেই আস্থা রুশ তারকার

শেষের পাতা

সামন হোসেন মস্কো (রাশিয়া) থেকে | ২৪ জুন ২০১৮, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৫
নিজনি নভোগরদ থেকে ফেরার পথে ট্রেনে পরিচয় রাশিয়ান স্পোর্টস জার্নালের সাংবাদিক নিকোলা স্লাভাচিসের সঙ্গে। মস্কোতে তার আসার উদ্দেশ্য  ডেনিস দিমিত্রিভিচ চেরিশেভ। রাশিয়ান মিডিয়া ম্যানেজারকে পটিয়ে দিমিত্রির সঙ্গে পাঁচ মিনিট কথা বলার অনুমতি পেয়েছেন নিকোলা। তার সঙ্গে ট্রেনিংয়ে যেতে চাইলে রাশিয়া ফুটবল দলের মিডিয়া ম্যানেজারকে মেইল করে অনুমতি নিতে বলেন নিকোলা। মিলে যায় রাশিয়ার অনুশীলন কাভার করার অনুমতি। মস্কো থেকে প্রায় ১৭০ কিলোমিটার দূরে নভোগোরস্কো স্পোর্টস সেন্টারে রাশিয়া দলের ট্রেনিং শুরুর আগেই হাজির হয় নিকোলা।
সেখানে সাক্ষাৎ হয় নিকোলার সঙ্গে, আগেই উপস্থিত ছিলেন বেশ কিছু রুশ সাংবাদিক। ট্রেনিং শুরুর আগে চেরিশেভকে মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলার জন্য পাঠিয়ে দেন মিডিয়া ম্যানেজার ইগোর ভ্লাদিমিরভ। ট্রেনিং দেখার সুযোগ পাওয়া গেলেও, ছবি তোলার অনুমতি ছিল না ।

নিকোলার মাধ্যমে চেরিশেভের কাছে বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে চাইলে চলতি আসরে তিন গোল নিয়ে রাশিয়ার সেরা তারকা ডেনিস চেরিশেভ বলেন, হ্যাঁ বাংলাদেশ। সেখানে জার্সি  তৈরি হয়। আমার অনেক জার্সি আছে যেখানে লেখা ‘মেড ইন বাংলাদেশ’। তোমাদের জার্সি গুড। এর বাইরে অবশ্য বাংলাদেশ সম্পর্কে বেশি কিছু জানেন না চেরিশেভ। বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান নিয়েও ধারণা নেই তার। তারপরেও বাংলাদেশ থেকে অনেক সাংবাদিক বিশ্বকাপ কাভার করতে রাশিয়া এসেছে শুনে অবাক চেরিশেভ। বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশের দারুণ একটা সুবিধা আছে। আয়োজক হওয়ার সুবাদে তাদের বাছাইপর্বের কঠিন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয় না। বাকি ফুটবল বিশ্ব যখন চূড়ান্ত পর্বে জায়গা করে নিতে বাছাইপর্বে ঘাম ঝরায়, তখন তারা দেশ-বিদেশে ঘুরে প্রীতি ম্যাচ খেলে বেড়ায়। এই ম্যাচগুলো খেলেই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সারে স্বাগতিকরা। এবারের বিশ্বকাপে স্বাগতিক রাশিয়াও একই অবস্থার মধ্য দিয়ে গেছে।

এক কনফেডারেশনস কাপ ছাড়া গত এক বছরে তারা কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেনি। সেই ম্যাচগুলোতেও যে তারা খুব ভালো করেছে, তা নয়। বিশ্বকাপে খেলতে নামার আগে গত অক্টোবরের পর থেকে কোনো ম্যাচেই জয় পায়নি তারা। এবারের বিশ্বকাপে যত দল খেলছে, তাদের মধ্যে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সবার নিচে রাশিয়া (৭০তম)। বোদ্ধাদের ধারণা ছিল, এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে বাজে দল হবে স্বাগতিক রাশিয়া। মস্কো টাইমসের পরিসংখ্যান মতে, বাছাই পর্ব খেলতে হলে নাকি রাশিয়া বিশ্বকাপই খেলতে পারতো না। এই পরিসংখ্যান মোটেও মানতে চাইছেন না স্প্যানিশ ক্লাব ভিয়ারিয়ালের ফরোয়ার্ড ডেনিস চেরিশেভ।

প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবকে ৫-০ গোলে হারানোর পর মিশরের বিপক্ষে রুশরা জয় দেখে পরিষ্কার ৩-১ গোলে। দুই ম্যাচে আট গোল করা রাশিয়াকে অনেকেই বলছেন এই বিশ্বকাপের বিস্ময়। ২০০২ ও ২০১৪ এই দুই বিশ্বকাপে মোট যত গোল করেছিল রাশিয়া, এবারের আসরে শুরুর দুই ম্যাচেই সেটি ছাড়িয়ে গেছে তারা। ২০১০’র বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের পথে স্পেন যত গোল করেছিল, এবার দুই ম্যাচেই রাশিয়ার গোল তার চেয়ে বেশি। আসরের প্রথম দল হিসেবে দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকিট কাটে রাশিয়াই। কী জাদু বদলে দিয়েছে রাশিয়াকে? এমন প্রশ্নে চেরিশেভ বলেন, জাদু-টাদু কিছু না। দেশের মাটিতে খেলা। তার ওপর দীর্ঘদিন ধরে এক সঙ্গে খেলে আসছে দলটি। আমাদের বিশ্বাস ছিল, বিশ্বকাপে ঠিকই জ্বলে উঠতে পারবো। নিজের পারফরমেন্স নিয়ে এই ফরোয়ার্ড বলেন, আমি কিন্তু লীগে গোল পাচ্ছি। তবে জাতীয় দলের হয়ে গোল পাচ্ছিলাম না। এবার বিশ্বকাপে খেলার আগে বাবার সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা হয়েছে। তিনি আমাকে একটাই উপদেশ দিয়েছেন, ধৈর্য্য হারা না হতে। আমি তাই করেছি।

বাবা ত্রিমেত্রি নিকোলাভিচ চেরিশেভও খেলেছিলেন রাশিয়া জাতীয় দলে। জাতীয় দলের অভিষেকটাও বাবার মতোই, যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে। ২০১২ সালে। চেরিশেভ তখন ইউরোপের উঠতি নামকরা খেলোয়াড়দের একজন। রাশিয়ার তারকারা তখন একে একে ঝরে পড়ছেন। ৫ বছর পর ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ, দলের কী অবস্থা হবে সেটা নিয়ে রাশিয়ানদের দুশ্চিন্তা তখন থেকেই। তখনই সুযোগ মেলে জাতীয় দলে। ২০১৩ সালে জাতীয় দলের হয়ে প্রথম কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে নেমেছিলেন চেরিশেভ। বদলি হয়ে মাঠে নামেন বিরতির সময়, বের হয়ে আসতে হয়েছিল ৫ মিনিট পরই, ইনজুরি নিয়ে। ২০১৪ বিশ্বকাপের আগে প্রীতি ম্যাচের জন্য রাশিয়া দলে ডাক পেয়েছিলেন। তার আগে পড়লেন ইনজুরিতে, খেলা হলো না সেই ম্যাচেও। নিজেকেও প্রমাণ করা হলো না কোচ ফ্যাবিও ক্যাপেলোর কাছে। বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দলেও তাই হলো না জায়গা।

২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর হঠাৎ একটা সুযোগ পেয়ে গেলেন। ফ্রান্সের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচের জন্য রাশিয়া দলে ডাক পান চেরিশেভ, প্রায় আড়াই বছর পর। বিশ্বকাপের জন্য ২৩ জনের দলেও স্তানিশ্লাভ চেরচেশভের দলে থেকে গেল নামটা। চেরিশেভ খেলবেন বিশ্বকাপে, ঘরের মাঠের বিশ্বকাপে। সৌদি আরবের বিপক্ষে প্রথম একাদশে ছিলেন না চেরিশেভ। গ্রাজিনস্কির গোলে লিড নেয়ার পর উৎকণ্ঠা ছাপিয়ে উৎসবে রঙিন হলো রাশিয়া। কিন্তু ২৪ মিনিটে অ্যালান জাগোয়েভ হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়লে আবারো শঙ্কা চেপে বসে। চেরিশেভের নামার কথা ছিল না, হুট করেই নেমে পড়তে হলো বড় দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে। ওই ম্যাচে দুই গোল করেন চেরিশেভ। মিশরের বিপক্ষে ম্যাচেও গোল পান তিনি। দুই খেলায়ই ম্যাচ সেরা হন। তবে আগের ম্যাচগুলো নিয়ে এখন আর ভাবতে চান না তিনি। চেরিশেভ বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া। এজন্য উরুগুয়েকে হারাতে চাই। আগামীকাল সামারা অ্যারেনাতে গ্রুপের শেষ ম্যাচে উরুগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে রাশিয়া। এই ম্যাচেও গোল করতে চান এই রাশিয়ান ফরোয়ার্ড। তার বিশ্বাস, রাশিয়া এই বিশ্বকাপে অনেক দূর পর্যন্ত যাবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘নিজেকে আমি বন্দী রাখতে চাই না’

রাজশাহীতে ক্রমশ ঘোলাটে হচ্ছে পরিবেশ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গ্রন্থাগারে হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কর্নার

কুষ্টিয়ায় মাহমুদুর রহমানের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

আইএসআই আমাকে প্রধান বিচারপতি বানাতে চেয়েছিল

সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সরোয়ারের শঙ্কা

ঢাবিতে সমাবেশ ছাত্রলীগের মারধর

আইটিইউ নির্বাচনে জয় চায় বাংলাদেশ

শিল্পনগরীর বেহালদশা, রপ্তানিতে পিছিয়ে পড়ছে চামড়া শিল্প

যুক্তরাষ্ট্রে বেক্সিমকো ফার্মার চতুর্থ ওষুধ রপ্তানি শুরু

জন্মদিনের পার্টির কথা বলে ডেকে তরুণীকে গণধর্ষণ

তিন সিটিতে প্রচারণায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার ঘটনায় নিন্দা ঢাবি শিক্ষকদের

মাহমুদুর রহমানকে নিরাপত্তা দিতে আসেনি পুলিশ: ফখরুল

অ্যানি আলী খানের মরদেহ উদ্ধার