মহানগর উত্তরের সংকট সমাধানে সময় নিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২৪ জুন ২০১৮, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:২৭
ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র ঘোষিত থানা ও ওয়ার্ড কমিটির সংকট নিরসনে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত সময় নিয়েছেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল সংগঠনের বিক্ষুব্ধ  নেতারা তার সঙ্গে দেখা করলে তিনি এই সময় নেন। এ সময়ে মহাসচিব নেতাদের বলেন, রোববার দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মামলা রয়েছে। সোমবার ও মঙ্গলবার গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন তিনি। আর এই সময়ের মধ্যে তিনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিতর্কিত কমিটি গঠনে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। এ বিষয়ে মহানগর উত্তর বিএনপির সহ-সভাপতি ফেরদৌসী আহমেদ মিষ্টি জানান, মহানগর উত্তর বিএনপির থানা ও ওয়ার্ড কমিটি নিয়ে বিক্ষুব্ধ মহানগর পদবঞ্চিত নেতাকর্মী আর সংগঠনের পদধারী নেতারা মহাসচিবের উত্তরার বাসভবনে দেখা করেছেন।
তিনি আমাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন। ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়ে আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে সমস্যা সমাধানে আশ্বস্ত করেছেন। সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক শামীম পারভেজ বলেন, মহানগর উত্তর বিএনপির সভাপতি এমএ কাইয়ুম ও সাধারণ সম্পাদক আহসানউল্লাহ হাসান একক স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে থানা ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করেছেন। এসব পকেট কমিটিতে মাদক ব্যবসায়ী, খুনি, দলিল লেখক সহ বিতর্কিতদের স্থান দেয়া হয়েছে। আমরা এসব বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে যোগ্য ও ত্যাগীদের দিয়ে কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছি। মহাসচিব আমাদের দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল রহমান, সহ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন, সহ সম্পাদক হেলালউদ্দিন তালুকদার ও আলাউদ্দিন টিপু এ বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করেন। এর আগে গত বুধবার মহানগর উত্তরের নেতারা মহাসচিবের সঙ্গে দেখা করে ঘোষিত কমিটির বিতর্কিত নেতাদের এবং বাদ পড়া যোগ্য ও ত্যাগীদের ২টি তালিকা জমা দেন। এর মধ্যে ২৫টি থানায় ১০৭ জন বাদ পড়া নেতার নাম রয়েছে। তারা এই তালিকা দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাজাহানের কাছেও দেন। আজ রোববার দলের স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ছাড়াও অন্যদের নিকট জমা দেবেন বলে সংগঠন সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে মহানগর উত্তর বিএনপির ৬৬ জন নেতার মধ্যে ৩০ জন নেতা ঘোষিত কমিটির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে এই তালিকা প্রস্তুত করেছেন। সেখানে দলীয় নেতার হত্যাকারী ফাঁসির আসামিকে পদায়ন ছাড়াও মাদক ব্যবসায়ী, দলিল লেখক, মানব পাচারকারী, নারী নির্যাতনকারী, নেতাদের দেহরক্ষী ছাড়াও জাতীয় পার্টি এবং আওয়ামী লীগের ঘনিষ্ঠজনদের নাম রয়েছে। ঘোষিত ভাষানটেক থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার ইব্রাহীম খলিল র‌্যাব ও পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী। বিএনপির সাবেক কমিশনার ও সাবেক ছাত্রদল প্রভাবশালী নেতা প্রয়াত সায়েদুর রহমান নিউটন হত্যা মামলার ফাঁসির আসামি। ২০০৭ সালের অক্টোবরে অন্যান্য তিন সন্ত্রাসীর সঙ্গে তাকে ভারত থেকে পুশব্যাক করা হয়েছিল। বর্তমানে তিনি পলাতক অবস্থায় মালয়েশিয়া অবস্থান করছেন। এ ধরনের বিতর্কিত লোককে কমিটিতে রাখায় ইতিমধ্যে পদত্যাগ করেছেন কমিটির অন্যসব সদস্য। মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে থানায় ছবিসহ নাম ঝোলানো রয়েছে তুরাগ থানা বিএনপির সভাপতি আমানউল্লাহ ভূঁইয়ার। একসময়ে দলিল লেখক ছিলেন তিনি। সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ খোকা ডাকাতি করতে গিয়ে ধরা পড়েন এবং কামারপাড়া ঈদগাহ মাঠে প্রকাশ্যে বিচার করা হয়। তিনি ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আহসানউল্লাহ হাসানের দেহরক্ষী হিসেবে পরিচিত। মোহাম্মদপুর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এনায়েতুল হাফিজের আগে কোনোদিন বিএনপির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন না। বহিরাগত ও একজন নারী নির্যাতনকারী হিসেবে পরিচিত এলাকায়। ধর্ষণ মামলায় কয়েকদিন আগে কারাগার থেকে বের হয়ে বর্তমানে পলাতক রয়েছেন। বনানী থানা বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বেতনভুক্ত নিরাপত্তারক্ষী-সিএসএফ-এ কর্মরত। উত্তরা পশ্চিম থানা বিএনপির সভাপতি হাজী মো. দুলাল বিএনপির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন না। কিছুদিন আগে নারী ও মাদকসহ উত্তরা পূর্ব থানায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল পাশা আনুষ্ঠানিকভাবে ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করায় দল থেকে বহিষ্কৃত হয়েছিলেন। তার পরিবারের সদস্যরা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। উত্তরা পূর্ব থানা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক শরিফুল ইসলাম টুটুল ৪/৫ বছর আগে বিএনপির রাজনীতিতে আসেন। দক্ষিণখান থানার সভাপতি সাহাবউদ্দিন সাগর এক যুগ ধরে নিষ্ক্রিয়। সাংগঠনিক সম্পাদক আমীরুল ইসলাম বাবলু র‌্যাব ও পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী।

দারুস সালাম থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির নিজ বাসায় নারী ব্যবসার অভিযোগে স্ত্রী-পুত্রসহ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। মিরপুর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ওয়াজউদ্দিন মিয়া ইয়াবা মামলায় বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন। দলিল লেখক এই নেতা জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে ২ বছর আগেও জড়িত ছিলেন। কিন্তু আহসান উল্লাহ হাসানের আপন খালাত ভাই হওয়ায় এই গুরুত্বপূর্ণ পদ পেয়েছেন তিনি। রূপনগর থানা বিএনপির সভাপতি আবদুল আওয়াল দলের কোনো পর্যায়ের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না। সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আলমগীর আহসানউল্লাহ হাসানের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করতেন। সাধারণ সম্পাদক মো. মজিবর, যুগ্ম সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান তালুকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুর রহমান অখ্যাত। নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষের সঙ্গে তাদের কোনো পরিচিতি নাই। পল্লবী থানা বিএনপির সভাপতি সাজ্জাদ হোসেনের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের এমপির সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার অভিযোগ রয়েছে। বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত না থাকলেও সাধারণ সম্পাদক বুলবুল আহমেদ মল্লিক, সহসভাপতি হাজী তৈয়ব আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমাসউদ্দিন, মনির হোসেনকে পদ দিয়েছেন মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক।

এ ছাড়া শারীরিকভাবে অক্ষম অনেক বয়োবৃদ্ধ নেতা রয়েছেন কমিটিতে। যারা নিজেরা ঠিকমতো হাঁটাচলা পর্যন্ত করতে পারেন না। অন্যদিকে মিরপুর থানা বিএনপির সহসভাপতি মজিবর রহমান নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তালেব, শাহ আলী থানার সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির রওশন, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজান (ছোট মিজান), রূপনগর থানার সহসভাপতি হেলালউদ্দিন চপল, পল্লবী থানার সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক লাবলু, উত্তরা পশ্চিম থানার যুগ্ম সম্পাদক মেজবাহউদ্দিন রাজনৈতিক কার্যক্রমে নিষ্ক্রিয় বলে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূলে। সাংগঠনিক সম্পাদক আলাউদ্দিনকে নিষ্ক্রিয়তার কারণে ছাত্রদল থেকে অব্যাহতি দেয়ার নির্দেশটি বলবৎ রয়েছে এখনও। উত্তরা পূর্ব থানা সভাপতি আবদুস সালাম সরকার ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এফ ইসলাম চন্দন বিগত ১০ বছর ধরে সম্পূর্ণ নিষ্ক্রিয়। বিমানবন্দর থানা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক কাজী শফিকুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক মমিনুল ইসলাম জুয়েল ওয়ান ইলেভেন থেকেই নিষ্ক্রিয়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Md nazrul islam

২০১৮-০৬-২৩ ১২:১৬:১৮

বিএনপি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় দল আওয়ামী লীগের সাথে রাজনৈতিক লড়াই করতে হলে শুধু ভালমানুষ দিয়ে দল চলবে না আরো দুর্দান্ত লোক জন প্রয়োজন

আপনার মতামত দিন

১০ বাংলাদেশি লিবীয় উপকূলে জীবিত উদ্ধার

প্যারিস বিমানবন্দরে ফ্রান্স টিম

ফ্রান্সের রাস্তায় রাস্তায় স্লোগান আমরা চ্যাম্পিয়ন

মামলা, পুলিশ কর্মকর্তার মাথায় পিস্তল ঠেকানোর অভিযোগ আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে

ওসমানী হাসপাতালে স্কুলছাত্রী ধর্ষিত, ইন্টার্ন চিকিৎসক আটক

বাংলাদেশের নির্বাচনে একপেশে নীতি ভারতের পক্ষে যাবে না

বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের ওপর হামলা নজিরবিহীন

মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করিনি

যারা শিক্ষকের ওপর আঙ্গুল তোলে তারা ছাত্র নামের কলঙ্ক

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিরপেক্ষ থাকার নির্দেশ মাহবুব তালুকদারের

প্রত্যেক উপজেলায় ‘স্বতন্ত্র পরীক্ষা কেন্দ্র’ হচ্ছে

নিখোঁজ তারেকের সন্ধান চায় পরিবার

সরকারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি বিটিআরসির

শফিককে জবাব দিতে মাঠে লুনা

নজর কাড়ার চেষ্টায় বিএনপি লিটন বলছেন মিথ্যাচার

২,১৫৪ জনে অনাপত্তি মিয়ানমারের তবে...