সিসিক নির্বাচন

দলের মনোনয়ন চান আরিফ ও কামরান

দেশ বিদেশ

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে | ২১ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:২৫
নিজ দলের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সঙ্গে লড়াই করছে সিলেটের আরিফ ও কামরান। মনোনয়ন নিয়ে তাদের মধ্যে রীতিমত চলছে যুদ্ধ। এই অবস্থায় গতকাল দুজনই মার্কা পেতে দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন। আর মনোনয়ন সংগ্রহ শেষে দুইজনই দলের মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। তবে- আপাতত তাদের দলের ভেতরে লড়াই করতে হচ্ছে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে। সিলেটের বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি ২০১৩ সালের নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত হিসেবে নির্বাচন করেছিলেন। এবারও তিনি বিএনপির মনোনয়ন চান।
আরিফ গতকালই ঢাকায় পৌঁছে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছেন। তার সঙ্গে মনোনয়নপত্র কিনেছেন সিলেট বিএনপির আরো ৪ নেতা। এর মধ্যে রয়েছেন মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, সহসভাপতি ও প্যানেল মেয়র-১ রেজাউল হাসান লোদী কয়েস ও গত বারের প্রার্থী যুবদল নেতা সালাহ উদ্দিন রিমন। গতবার আরিফের সঙ্গে দলের ভেতরে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছিলেন মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন। পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে খ্যাত নাসিম হোসাইন এবার দলীয় মনোনয়ন পেতে অনেক আগে থেকেই কাজ করছেন। গতকাল সকালে তিনি বিএনপি কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে মানবজমিনকে জানালেন- তিনি বিএনপির নির্বাচিত মহানগর সভাপতি। তিনি নির্বাচন করতেই সিলেটে দল সুসংগঠিত করেছেন। তার পক্ষে দলীয় নেতা-কর্মীরা একাট্টা রয়েছেন। এবার তিনি দলের মনোনয়নপত্র চান। এদিকে- বর্তমান মেয়র প্রার্থী হিসেবে আরিফের অগ্রাধিকার বেশি রয়েছে। আরিফুল হক চৌধুরীও ভোটের প্রস্তুতি নিচ্ছেন প্রায় ৬ মাস ধরে। আরিফ এবার তার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে ভোট চাইবেন বলে জানান। এদিকে- আজ বিকাল ৫টায় ঢাকার নয়াপল্টনস্থ কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মুখোমুখি সিলেটের মেয়র প্রার্থীরা। এ বৈঠক থেকে সিলেটের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা আসতে পারে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় অবস্থানরত সিলেট বিএনপির নেতাক-র্মীরা। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে গতকাল বিকালে দলের কার্যাল থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন সিলেটের সাবেক মেয়র ও কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। সকালে তিনি ঢাকা থেকে সিলেটে পৌঁছে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। কামরান জানিয়েছেন- তিনি সিলেটে দীর্ঘ দিন ধরে মানুষের জন্য কাজ করছেন। তিনি ভোটের প্রস্তুতি নিয়েই রেখেছেন। দল তাকে মনোনয়ন দিলে তিনি নির্বাচন করবেন জানান। সব কিছু নির্ভর করছে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর। কামরান সিলেটে পৌরসভার চেয়ারম্যান থেকে পরপর দুই বার মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছেন। সিলেটে দলের মহানগর কমিটির সভাপতিও। তবে- দলীয় মনোনয়নে কামরানের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আরো চার জন। গতকাল এরা ঢাকায় গিয়ে দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এর মধ্যে রয়েছেন- মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার আলোয়ার এবং শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ। ঢাকায় অবস্থানরত সিলেট আওয়ামী লীগের নেতারা মানবজমিনকে জানিয়েছেন- তারা সবাই মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। আজ বিকালের মধ্যেই তারা মনোনয়নপত্র জমা দেবেন। এরপর শুক্রবার দলের নির্বাচনী বোর্ড ঘোষণা করবে দলের প্রার্থীর নাম। এদিকে- শুক্রবার সিলেটের প্রায় ৪০ জন নেতাকে নিয়ে বৈঠক করবেন আওয়ামী লীগ প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি নির্বাচনের ব্যাপারে দলের নেতাকর্মীদের চূড়ান্ত গাইডলাইন দেবেন বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে। ঢাকায় দলীয় সভানেত্রীর সঙ্গে যারা বৈঠক করবেন এর মধ্যে রয়েছেন- মহানগর আওয়ামী লীগ থেকে যাচ্ছেন- সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, সহসভাপতি সিরাজ বক্স, অ্যাড. মফুর আলী, সিরাজুল ইসলাম, কয়েস গাজী, অ্যাড. রাজ উদ্দিন, আব্দুল খালিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার আলোয়ার, বিজিত চৌধুরী, জাকির হোসেন, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. কিশোর কুমার, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক তপন মিত্র, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ফাহিম আনোয়ার চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. সামসুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক আবদুর রহমান জামিল, বন ও পরিবেশ সম্পাদক জগদীশ চন্দ্র দাস, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক অ্যাড. সৈয়দ শামীম আহমদ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক দিবাকর ধর রাম, শ্রম সম্পাদক জুবের খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক প্রিন্স সদরুজ্জামান চৌধুরী, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. মিফতাহুল ইসলাম সুইট, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, এটিএম হাসান জেবুল, নুরুল ইসলাম পুতুল, উপদপ্তর সম্পাদক বিধান কুমার সাহা ও উপপ্রচার সম্পাদক গোলাম চৌধুরী দিপন। জেলা আওয়ামী লীগ থেকে যাচ্ছেন- ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাড. লুৎফুর রহমান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সহসভাপতি আশফাক আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, অ্যাড. শাহ ফরিদ আহম্মদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নিজাম উদ্দিন, অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, অ্যাড. নাসির উদ্দিন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম কামাল, অ্যাড. শাহ মশাহিদ আলী, মোহাম্মদ আলী দুলাল।


























এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নির্বাচন নয়, প্রত্যাবাসন নিয়েই কূটনৈতিক ব্রিফিং: পররাষ্ট্র সচিব

বিশিষ্ট নাগরিকদের ইতিবাচক ভূমিকা চায় ঐক্যফ্রন্ট

নির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ইসির অধীনে আনা উচিত

পর্যবেক্ষকদের জন্য নির্বাচন পেছানোর দাবি অযৌক্তিক- কাদের

নির্বাচন নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কূটনৈতিক ব্রিফিং বৃহস্পতিবার

পল্টনে অন্যরকম দৃশ্য

নির্বাচনে লড়তে চান শতাধিক শীর্ষ ব্যবসায়ী

‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’ মুক্তি পাবে ১৬ই নভেম্বর

আওয়ামী লীগ চায় নিজের লোক, মেনন বললেন ভিন্ন চিন্তা হলে ভোটই করবো না!

আওয়ামী লীগের ৯, বিএনপির ১০ মনোনয়ন প্রত্যাশী

রূপগঞ্জে আলোচনায় রফিকুল ইসলাম

শহিদুলের মুক্তি চাইলেন অরুন্ধতী রায়সহ দক্ষিণ এশিয়ার ৩৪ বিশিষ্ট ব্যক্তি

নির্বাচনে যাওয়ার ঘোষণা বাম জোটের

বদলে যাচ্ছে মাঠের চিত্র

চলছে ভোটের হিসাবনিকাশ