বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের বৈঠক

গাজীপুর নির্বাচনে নেতাকর্মীদের মাঠে থাকার নির্দেশ

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার
আসন্ন গাজীপুর সিটি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে গণসংযোগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। ঈদের পরদিন ১৮ই জুন থেকে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ কেন্দ্রীয় নেতারা গণসংযোগে অংশ নেবেন। সেখানে অবস্থান করেই তারা নির্বাচনী প্রচারণা করবেন। এর আগে প্রত্যেক দিন তারা ঢাকা থেকে গিয়ে গণসংযোগ করতেন। এর বাইরে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি। ভয়ভীতি উপেক্ষা করে এখন থেকেই সে প্রস্তুতি নেয়ার জন্য স্থানীয় দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। রাজধানীর গুলশানে গতকাল বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় নেতাদের এক বৈঠকে এমন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়াও বৈঠকে ভোটকেন্দ্রেগুলোয় শেষ পর্যন্ত পোলিং এজেন্টদের থাকা নিশ্চিত করতে বেশ কিছু পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হয়।
এর মধ্যে যাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো মামলা নেই তাদেরকেই পোলিং এজেন্ট করার সিদ্ধান্ত হয়। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, বরকত উল্লাহ বুলু, অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুল, গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী ছাইয়েদুল আলম বাবুল, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. মাজহারুল আলমসহ ৫৭টি টিমের নেতারা। গাজীপুর সিটির ৫৭টি ওয়ার্ডে গণসংযোগ পরিচালনায় আগেই এসব টিম গঠন করে বিএনপি। বৈঠকে উপস্থিত বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ বলেন, গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকবে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ৫৭টি ওয়ার্ডে ১৮ই জুন থেকে ফের গণসংযোগ চালাবে ৫৭টি টিম। এসব টিমে যারা রয়েছেন তাদের বৈঠকে কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সূত্র জানায়, বৈঠকে খুলনা সিটি নির্বাচনের উদাহরণ দিয়ে কেন্দ্রীয় নেতারা বলেন- খুলনা আর গাজীপুরের নির্বাচন এক নয়। ঢাকার কাছে হওয়ায় গাজীপুর নির্বাচনে ভোট কারচুপির সাহস দেখাবে না ক্ষমতাসীন দল। যদি কারচুপি করার চেষ্টা করা হয় তাহলে তা প্রতিহত করতে হবে। এজন্য ভোটের দিন কেন্দ্রে উপস্থিত থেকে সতর্ক অবস্থায় থাকতে স্থানীয় সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের প্রতি নির্দেশ দেন কেন্দ্রীয় নেতারা। বৈঠকে উপস্থিত স্থানীয় নেতারা বলেন, খুলনা সিটি নির্বাচনে বিএনপির যেসব ভুলক্রটি হয়েছে, গাজীপুরে তা হবে না। তাদের বিরুদ্ধে হামলা-মামলা যা-ই করা হোক না কেন তা মোকাবিলা করে ভোটের দিন মাঠে থাকবেন। উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২৬শে জুন অনুষ্ঠিত হবে। ১৮ই জুন থেকে প্রার্থীরা প্রচারের সুযোগ পাবেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নির্বাচনে জয়-পরাজয়ে যা ফ্যাক্টর হতে পারে

প্রকৃত নির্বাচন দেখতে চান ইউরোপের কূটনীতিকরা

‘ক্ষমতায় গেলে অবশ্যই ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন বাতিল করব’

মিরপুর থানা বিএনপি সভাপতিসহ ৩জন গ্রেপ্তার

অবশেষে নির্বাচনী দৌড়ে হিরো আলম

খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা বাতিলের বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশ কাল

‘নির্বাচনে আপনারা তো হেরে যাচ্ছেন ইনশাআল্লাহ’

‘বৃটেন এখনও অনুচ্ছেদ ৫০ রদ করতে পারে’

তাজমহলে প্রবেশমূল্য বেড়েছে

রাতেই দেশ ছাড়ছেন এরশাদ

নাজিব রাজাক গ্রেপ্তার

সিইসিসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি

জবরদস্তি সত্ত্বেও জনগণ ধানের শীষের প্রার্থীকে ভোট দেবেই: নজরুল

তেরেসা মে’র সতর্কতা

ধানের শীষ প্রতীক পেলেন রেজা কিবরিয়া

হানিমুনেই মৃত্যু!