ফেনীতে দেয়াল ধসে নিহত ২

বাংলারজমিন

ফেনী প্রতিনিধি | ১৩ জুন ২০১৮, বুধবার
ফেনীতে নির্মাণাধীন একটি পাঁচ তলা ভবনের ছাদের দেয়ালের অংশ ভেঙে একজন নির্মাণ শ্রমিক ভবনের নিচের রাস্তায় থাকা অপর এক রিকশাচালকের ওপর পড়ে দুজনই নিহত হয়েছে। সোমবার বিকেলে শহরের দক্ষিণ সহদেবপুর মজুমদার বাড়িতে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহতরা হলেন- কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের নির্মাণ শ্রমিক নিমাই চন্দ্র সরকার (৫৫) ও রংপুরের নেপাসছরা গ্রামের রিকশা চালক মো. এমদাদুল (৩০)। ফেনী সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. রাশেদ খান চৌধুরী জানান, ফেনী শহরের দক্ষিণ সহদেবপুর মজুমদার বাড়ি এলাকায় জনৈক অশোক চন্দ্র তার তিন তলা বাড়ির উর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ করে পাঁচতলার ছাদও করেন। ছাদের ওপর দেয়ালের সাথে রাখা খোয়া (ইটের টুকরা) সরাতে গেলে হঠাৎ ছাদের দেয়ালের একাংশ ভেঙে নির্মান শ্রমিক নিমাই চন্দ্র নিচে পড়ে যান। এসময় ওই ভবনের পাশে নিচের সড়কে ছিল রিকশা চালক মো. এমদাদুল ছিলেন। নির্মাণ শ্রমিক নিমাই চন্দ্র পাঁচতলা থেকে রিকশা চালকের গায়ের ওপর পড়ে। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় দুজনকে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।
সেখানে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক নির্মাণ শ্রমিক নিতাই চন্দ্র সরকারকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত রিকশা চালক মো. এমদাদুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে পাঠানো হয়। চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ঐক্যফ্রন্টের বিরুদ্ধে কেন আক্রমণাত্মক আওয়ামী লীগ?

আসামে ৩১ বাংলাদেশি আটক (ভিডিও)

২০ দলীয় জোটের সঙ্গে বৈঠকে বিএনপি

ফল প্রকাশের ঘোষণা দিয়ে ফের স্থগিত!

চট্টগ্রামে পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাস চলছেই!

কলকাতায় দৃষ্টিহীনদের জন্য পুজো

যৌতুকের কারণে অন্তসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

গুগল ম্যাপে দেখলেন স্ত্রী পরকীয়ায় মত্ত

বিয়ে বাড়ী থেকে পালিয়ে যাবার পর...

যৌন হয়রানির প্রতিবাদের ভিডিও ভাইরাল(ভিডিও)

‘অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ে যাচ্ছে সরকার’

মজুরি বাড়ায় রক্তক্ষরণ হচ্ছে: বিজিএমইএ

কে এই জামাল খাসোগি?

ডা. জাফরুল্লার চৌধুরীর বিরুদ্ধে জিডি

ঐক্যফ্রন্টকে আইনজীবি সমিতির অভিনন্দন

বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন আহমেদের মামলার রায় ৯ নভেম্বর