টুকরো খবর

বাংলারজমিন

| ১৩ জুন ২০১৮, বুধবার
চাঁপাইয়ের পাগলা নদী থেকে দু’জনের মরদেহ উদ্ধার
চাঁপাই নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাই নবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পাগলা নদী থেকে শাওন আলী (১২) ও তারেক হোসেন (১১) নামে দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের ডুবরী দল। শাওন আলী শিবগঞ্জ উপজেলার নারায়ণপুর টাওয়ারপাড়ার মৃত আনারুল ইসলামের ছেলে ও তারেক হোসেন মনাকষার এলাকার আবুল কালামের ছেলে। শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন জানিয়েছে- সোমবার দুপুরে শাওন ও তারেক পাগলা নদীতে গোসল করতে যায়। এ সময় দু’জনই নদীতে ডুবে যায়। গত সোমবার রাতে শাওনের মরদেহ নদীতে ভেসে উঠতে দেখে এলাকাবাসী ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিসের ডুবরী দল রাতেই নদী থেকে শাওনের মরদেহ উদ্ধার করে। এছাড়া মঙ্গলবার সকালে তারেক হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। তারেক হোসেন বেশ কয়েকদিন আগে তার নানীর বাড়িতে বেড়াতে আসে বলে জানিয়েছে তার পরিবার।
এ প্রসঙ্গে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ম্যানেজার সিরাজ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শাওন ও তারেকের মরদেহ ২০৯ ঘণ্টার মধ্যে উদ্ধার করে স্ব-স্ব পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
শিবগঞ্জে ৪ ঘর ভস্মীভূত

চাঁপাই নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার দুর্লভপুর ইউনিয়নের ৫ কাঠা গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে আব্দুল মালেকের বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডে ৪টি ঘর ভম্মীভূত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষ এমন ঘটনা ঘটিয়ে বলে ধারণা করছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার। এছাড়া আগুনে ৬টি ছাগল ও বাড়ির প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র পুড়ে ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। সরজামিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ঘরে আগুন লাগিয়ে পালিয়ে যায় প্রতিপক্ষরা। এ সময় বাড়ির গৃহিণী রোকসানা বেগম পাশের ঘর থেকে ছাগলের ডাক শুনে জেগে উঠে দেখে বাড়িতে আগুন। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের মানুষ আসার পূর্বেই ৪টি ঘর পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যায়। ঘরের ভিতরে থাকা ৬টি ছাগল, শয়ন ঘরে থাকা আসবাবপত্রসহ প্রয়োজনীয় সবকিছুই পুড়ে ভস্মীভূত হয়। এতে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় আড়াই লাখ টাকা হবে বলে জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার। একই এলাকার বাদল, কাউয়ুম, রফিক, রেজাউল, মোশারফসহ বেশ কয়েকজন জানায়, পদ্মা নদী ভাঙনের কারণে নিজ জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় গত ৩ বছর আগে নানার জমিতে আবদুল মালেক বাড়ি নির্মাণ করে।
রংপুরে ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর থেকে: রংপুরে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জেরে ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনা ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার ভোরে বদরগঞ্জ পৌর শহরের স্টেশন পাড়ায় এলাকায়। বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিসুর রহমান জানান, বদরগঞ্জ পৌরসভার বটপাড়া এলাকার নুর ইসলামের ছেলে ফিরোজ শাহর কাছে রেজাউলের বড়ভাই হাবিবুর ৩০ হাজার টাকা পেতেন। রাতে রেজাউলের সঙ্গে ফিরোজের দেখা হলে তাদের মধ্যে পাওনা টাকা নিয়ে কথাকাটাকটি ও হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে ফিরোজ রেজাউলকে ছুরিকাঘাত করেন। এতে রেজাউল গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিবাগত রাতে মৃত ঘোষণা করেন। রেজাউল করিম বদরগঞ্জ উপজেলার কালুপাড়া ইউনিয়নের গোয়ালাপাড়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে।
রংপুরে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে নিহত ১
এদিকে ধান কাটাকে কেন্দ্র করে রংপুরের পল্লীতে দুপক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে গোলাম আযম (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার বিকেলে পীরগঞ্জ উপজেলার কুমেদপুর ইউনিয়নের পলাশবাড়ি গ্রামে। এ সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ মহিলাসহ ৩ জনকে আটক করেছে। পুলিশ ও গ্রামবাসীর সূত্রে জানা যায়, চলতি ধান কাটা মৌসুমে ওই গ্রামের রাজা মিয়ার পুত্র গোলাম আযম সহ ১৩-১৪ জন দলবদ্ধ ভাবে ঠিকাচুক্তি নিয়ে অন্যের জমিতে ধানকাটার কাজ করে আসছিল। ধানকাটা ও পরিবহন নিয়ে আমিনুল ইসলামের সঙ্গে গোলাম আযমের বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দুপক্ষের লোকজনের মারামারিতে গোলাম আযম রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। স্থানীয়রা গুরুতর আহত আযমকে মুর্মুষ অবস্থায় মিঠাপুকুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। ভেন্ডাবাড়ি পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ সুশান্ত সরকার জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে আমিনুল ইসলাম (৪৫), তার স্ত্রী মর্জিনা বেগম ও তার বোন ফাহিমা আক্তারকে আটক করা হয়েছে।
কসবায় ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত ১
কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার তিনলাখপীর-চারগাছ সড়কের মূলগ্রাম ইউনিয়নের রাইতলা নামক স্থানে গত সোমবার গভীর রাতে ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। তার পরিচয় পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে তার বয়স ৪০ বছর। এ সময় সুমন মিয়া নামক এক যাত্রী ছুরিকাহত হয়েছে। তাকে গুরুতর অবস্থায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে; উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের চারগাছ গ্রামের বাসিন্দা সোহাগ মিয়া বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকরি করেন। গত সোমবার রাতে তিনি ছুটিতে বাড়িতে আসেন। তাকে নিয়ে যেতে সোহাগের বন্ধু চারগাছ গ্রামের শাহআলম মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া (২৮) নামক এক ব্যক্তি মোটরসাইকেল নিয়ে আসেন। তিনিসহ তিনব্যক্তি একটি মোটরসাইকেল দিয়ে চারগাছ রওয়ানা করেন। মোটরসাইকেলটি রাত দুইটার দিকে কসবা উপজেলার তিনলাখপীর-চারগাছ সড়কের রাইতলা নামক স্থানে পৌছলে এক দল ডাকাত রাস্তায় গাছ ফেলে তাদের গতিরোধ করে ডাকাতির চেষ্টা করেন। এ সময় মোটরসাইকেল আরোহীরা চিৎকার করতে থাকেন। তারা ও ডাকাতদের প্রতিহত করতে থাকেন। তাদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন দৌড়ে এলে ডাকাতরা পালিয়ে গেলেও একজন পুকুরের পানিতে পড়ে যায়। পরে জনতার গণপিটুনিতে ওই ডাকাত নিহত হয়েছে। তার পরিচয় পাওয়া যায়নি। ডাকাতদের উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে সুমন নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে টহলরত পুলিশ রাতেই নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
জাবিতে সম্পূরক ছাত্রবৃত্তির পরিমাণ বেড়েছে চারগুণ
জাবি থেকে সংবাদদাতা: ২০ বছর পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাসিক সম্পূরক বৃত্তির অর্থের পরিমাণ চারগুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার (কাউন্সিল) মো. জাহাঙ্গীর সিকদার মানবজমিনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এ সময় তিনি বলেন, মাসিক সম্পূরক বৃত্তির অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি করে ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা আগে ১২৫ টাকা ছিল। গত ৪ ও ৫ই জুন অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ঐ সিন্ডিকেট সভার পর থেকেই সিদ্ধান্তটি কার্যকর হয়েছে বলেও জানান তিনি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্পূরক আর্থিক সাহায্য বিধির আওতায় প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এবং পরবর্তী বছরগুলোতে চূড়ান্ত পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে প্রতিটি বিভাগের প্রথম সারির ৫০ শতাংশ শিক্ষার্থীদের এ বৃত্তি প্রদান করা হয়। শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের দাবির কারণে বৃত্তির টাকার পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চ শিক্ষা ও বৃত্তি শাখা থেকে সম্পূরক বৃত্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন সময়ে সিন্ডিকেটের কার্যবিবরণী থেকে জানা যায়, ছাত্রদের মাসিক বৃত্তি ১৯৮২ সালে ৭৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০০ টাকা করা হয়। পরে ১৯৯৮ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে ১২৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এছাড়াও ১৯৮২ সালের আগে মাসিক সম্পূরক বৃত্তির পরিমাণ ৬৫ টাকা ছিল বলে জানা যায়। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে শুধু জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়েই এ সম্পূরক বৃত্তি প্রদান করা হয়।
কিশোরগঞ্জে এতিমদের সঙ্গে পুনাকের ইফতার
স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে: কিশোরগঞ্জে অসহায় এতিম শিশুদের জন্য জেলা পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) ইফতার অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। সোমবার শহরের সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) প্রাঙ্গণে এই ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। জেলা পুনাক সভানেত্রী মাহফুজা নাজনীন দিষার চৌধুরী সরকারি শিশু পরিবার নিবাসী এতিম মেয়েদের সাথে ইফতারের আগে কুশল বিনিময় করেন। পুনাক সভানেত্রীকে কাছে পেয়ে এতিম শিশুদের চোখেমুখে আনন্দের ঝিলিক দেখা যায়। ইফতারের আগে বক্তৃতায় পুনাক সভানেত্রী মাহফুজা নাজনীন দিষার চৌধুরী বলেন, পুনাক পরিবার মানবিক দায়বদ্ধতা থেকে সব সময়ে সুবিধাবঞ্চিত, এতিম ও প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর পাশে থেকেছে। আগামী দিনেও এর ব্যতিক্রম হবে না। রমজানে পুনাকের এই ইফতার আয়োজন এতিম শিশুদের মাঝে আনন্দ ছড়িয়ে দিবে বলেও তিনি আশাপ্রকাশ করেন। ইফতার ও দোয়া মাহফিলে পুনাক সহ-সভানেত্রী সূচনা চাকমা ছাড়াও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ অংশ নেন। উন্নতমানের ইফতার সামগ্রী ও রাতের খাবার পেয়ে সরকারি শিশু পরিবারের দেড় শতাধিক বালিকা আনন্দভরে তা গ্রহণ করে।
কুলিয়ারচর থানার ওসি কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ
স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে: কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নান্নু মোল্লা কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হয়েছেন। মে (২০১৮) মাসে তিনি জেলা পুলিশের শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হওয়ার পাশাপাশি শ্রেষ্ঠ থানা নির্বাচিত হয়েছে তাঁর নেতৃত্বাধীন কুলিয়ারচর থানা। মঙ্গলবার (১২ই জুন) জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভায় পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ, বিপিএম শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে কুলিয়ারচর থানার ওসি মো. নান্নু মোল্লা’র নাম ঘোষণা করেন এবং পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ তুলে দেন। পাশাপাশি জেলার শ্রেষ্ঠ থানার পুরস্কারও লাভ করে কুলিয়ারচর থানা। গত মে (২০১৮) মাসে ওয়ারেন্ট তামিল, অন্যান্য আসামি গ্রেপ্তার, মাদক মামলার আসামি গ্রেপ্তার, মাদক উদ্ধার এবং থানার সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতায় অন্যান্য থানার চাইতে পয়েন্টের দিক দিয়ে এগিয়ে থাকায় কুলিয়ারচর থানাকে কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ থানা এবং কুলিয়ারচর থানার ওসি মো. নান্নু মোল্লাকে শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত করা হয়।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মাহবুব উদ্দিন খোকনের গাড়ি বহরে হামলা

নিরাপত্তার আবেদন নিয়ে ইসিতে হাফিজউদ্দিন

মনে হচ্ছে পুলিশ আমাদের প্রতিদ্বন্দী: আলাল

বিএনপি ও জামায়াতের ৩ শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

বিএনপি প্রার্থী ফজলুল হক মিলন গ্রেপ্তার

আবার ব্রাসেলসমুখী তেরেসা মে

বাঁধার কারণে প্রচারণা চালাননি আফরোজা আব্বাস

পুলিশি অত্যাচারে আমার নেতাকর্মীরা মাঠে নামতে পারছে না: নীরব

শরীকদের দিয়ে একাধিক প্রার্থী দেয়াই ছিল আমাদের কৌশল: কাদের

আওয়ামী লীগের আনুষ্ঠানিক প্রচারাভিযানের উদ্বোধন

ঝিনাইদহে ধানের শীষের প্রধান এজেন্টসহ শীর্ষ নেতাদের নামে নতুন করে নাশকতার মামলা

লক্ষ্মীপুরে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর মতবিনিময় সভায় হামলা, ভাংচুর

২৪ ডিসেম্বর মাঠে নামবে সেনা ও নৌবাহিনী : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নির্বাচন করতে পারবেন না ইলিয়াসপত্নী লুনা

একক বেঞ্চের উপর খালেদার আইনজীবীর অনাস্থা, রিটের শুনানি হয়নি

৩০ ডিসেম্বর এই স্বৈরাচার সরকারের পতনের দিন