রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দেয়াল ধসে শিশু নিহত, আশ্রয়হীন চার শতাধিক পরিবার

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, উখিয়া থেকে | ১২ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার
সাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে গত ৩দিন ধরে উখিয়ায় ভারী বর্ষণ ও ঝড়ো হাওয়ায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের বসতবাড়ীর দেয়াল ধসে পড়ে ৪ শতাধিক পরিবার আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। এ সময় মাটি চাপা পড়ে নিহত হয়েছে আড়াই বছরের শিশু মো. ফারুক। সে কুতুপালং টিভি রিলে কেন্দ্র এলাকা সংলগ্ন ক্যাম্পে বসবাসকারী মো. শুক্কুরের ছেলে।
মো. শুক্কুর স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, সোমবার সন্ধ্যা থেকে প্রচণ্ড ঝড়ো হাওয়া ও ভারী বৃষ্টিপাত বইতে শুরু করে। রাত যত গভীর হচ্ছে ততই বাড়তে থাকে বৃষ্টি ও বাতাসের গতিবেক। ভোররাতের দিকে হঠাৎ করে তার বসতবাড়িটি ধসে পড়লে স্ত্রীকে নিয়ে কোনোরকম একটি গাছের খুঁটি ধরে রক্ষা পেলেও আড়াই বছরের শিশু মো. ফারুককে রক্ষা করার যায়নি।
বালুখালী ২নং ক্যাম্পের আবু তাহের মাঝি জানান, তার ক্যাম্প পাহাড় কেটে বসবাসের উপযোগী করে অধিকাংশ ঘর তৈরি করা হয়েছে।
যেগুলো ছিল খুবই ঝুঁকিপূর্ণ । ইতিপূর্বে প্রশাসন তার ক্যাম্পের ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারকে অন্যত্রে সরিয়ে নেয়ায় আশ্বস্ত করলেও তারা তা করেনি। রোববার রাতভর ভারী বর্ষণের ফলে পাহাড়ের খাদে ও উপরে বসবাসরত প্রায় ২৩০টি বসতবাড়ি ধসে পড়েছে। আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে এসব পরিবার।
তাজনিমার খোলা ক্যাম্পে ৪০টি, বালুখালী-১নং ক্যাম্পে ৬০, কুতুপালং ক্যাম্পে ৭০টি সহ প্রায় ৪ শতাধিক বসতঘর ধসে পড়ার ফলে ওইসব ঘরে আশ্রিত রোহিঙ্গারা এখন আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। এদের অনেকেই আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে আশ্রয় নিলেও খোলা আকাশের নিচে দিন যাপন করছে প্রায় ২ শতাধিক পরিবার।
উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানান, তিনি সকালে বেশ কয়েকটি ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন। সেখানে বেশকিছু বসতবাড়ি ধসে পড়তে দেখা গেছে এবং একটি শিশু মাটি চাপা পড়ে নিহত হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শী রোহিঙ্গারা তাকে জানিয়েছেন। শূন্যরেখায় কোমর পানি।
গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের পানিতে তুমব্রু খালের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। রোববার রাতে ঝড়ের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ার কারণে সীমান্তের তুমব্রু কোনারপাড়া শূন্যরেখায় আশ্রিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প কোমর পানিতে ঢুবে যায়। এ সময় রোহিঙ্গারা ঝুঁকি নিয়ে কোনোরকম রাত পার করলেও পানির তোড়ে প্রায় শতাধিক বসতবাড়ি লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে বলে রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন। সীমান্তের ওয়ালিডং পাহাড় থেকে সৃষ্ট এই তুমব্রু খালটি কোনারপাড়া হয়ে বালুখালী কোমারীরছড়ার সঙ্গে মিলিত হয়ে নাফ নদীতে পড়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অবশেষে সক্রিয় রাজনীতিতে নেমে কতদূর কী করতে পারবেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী?

‘নেতৃত্বের পরিবর্তন না এলে চলচ্চিত্রশিল্প পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাবে’

‘মুঘল শাসন থেকে মুক্ত করায়’ রাণী ভিক্টোরিয়াকে শ্রদ্ধাঞ্জলী হিন্দুসেনার

বিশ্ব চিন্তাবিদদের তালিকায় শেখ হাসিনা

সমঝোতা ফেব্রুয়ারিতে ইজতেমা

ডাকসু নির্বাচন ১১ই মার্চ

বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি তিন বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ২৩ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দুদকের চিঠি

এক বছরে যৌন নির্যাতনের শিকার ৮১২ শিশু

রাজধানীতে প্রকাশ্যে তরুণীকে নিয়ে টানাটানি শ্লীলতাহানির চেষ্টা

সুশাসনে অগ্রাধিকার দিচ্ছে বাংলাদেশের নতুন সরকার

নির্বাচনের অনিয়ম ও রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনা হয়েছে

লক্ষ্মীপুরে রোগী দেখতে গিয়ে লাশ হলেন সাত জন

খালেদার জামিন আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশ

সরকারি কেনাকাটা হবে উন্মুক্ত দরপত্রে: অর্থমন্ত্রী

ছাত্রলীগ নেতাসহ ৯ জন রিমান্ডে