নাজিব রাজাককে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদ

শেষের পাতা

মানবজমিন ডেস্ক | ২৩ মে ২০১৮, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৯
দুর্নীতি নিয়ে কয়েক ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হলো মালয়েশিয়ার ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে। সমন পাওয়ার পর মঙ্গলবার মালয়েশিয়ান এন্টি করাপশন কমিশনের (এমএসিসি) সামনে হাজির হন তিনি। মালয়েশিয়ার বাণিজ্যিক রাজধানী পুত্রজয়ায় কমিশনের সদর দপ্তরে তাকে কয়েক ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করার পর স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ১৫ মিনিটে তিনি সেখান থেকে বেরিয়ে যান। এ সময় অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের তিনি ব্রিফ করেন। বলেন, তাকে আরো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফের আসতে বলা হয়েছে। এর বাইরে তিনি কমিশনের কাছে কি তথ্য দিয়েছেন তা জানা যায় নি। তিনি কমিশনে হাজিরা দেবেন- এ খবরে সেখানে প্রায় ১০০ সাংবাদিক জড়ো হন। এর মধ্যে ছিলেন দেশি- বিদেশি সাংবাদিক।
মঙ্গলবার এসআরসি ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী কোম্পানিকে ঘিরে তার বক্তব্য কি এ বিষয়ে জানতে নাজিবকে তলব করা হয়। এদিন এ বিষয়ে তার বক্তব্য রেকর্ড করা হয়। উল্লেখ্য, এসআরসি ইন্টারন্যাশনাল ‘১এমডিবি’-এর একটি সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠান। নাজিবের বিরুদ্ধে যে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ তার বিরাট বড় অংশের অন্যতম এটি। ২০১২ সালে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে আসে এসআরসি। ওই সময় নাজিব ছিলেন অর্থমন্ত্রী। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীও। এ খবর দিয়েছে মালয়েশিয়ার স্টার অনলাইন।

এমএসিসি’র প্রধান কমিশনার মোহাম্মদ শুকরি আবদুল বলেছেন, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হবে না। কোনো ব্যবস্থা নেয়ার আগে শুধু তার বক্তব্য রেকর্ড করা হবে। এরপরই কমিশনে হাজির হন নাজিব। এর আগে এক সংবাদ সম্মেলনে শুকরি আবদুল বলেছেন, এসআরসি ইন্টারন্যাশনাল ও ১ এমডিবি তহবিলের অর্থ স্থানান্তর সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ দু’জন সাক্ষীর সাক্ষ্য নেয়া হবে। এই কমিশন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই দায়িত্ব পালন করেছে। তারা ১৮ই মে বলেছে যে, তদন্তে তারা সহায়তা চায়। ওদিকে ১এমডিবি সংশ্লিষ্ট দুর্নীতির সঙ্গে কোনো সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করেছেন নাজিব রাজাক। যদিও তিনি মুখে বলেছেন, কোনো দুর্নীতি হয়নি কিন্তু ওই সময়ে এ অভিযোগ তদন্তের দায়িত্বে থাকতে পারতেন এমন একজন অ্যাটর্নি জেনারেল ও এমএসিসির কয়েকজন কর্মকর্তাকে তিনি বদলি করেন। এতে তদন্ত আটকে যায়। অভিযোগ আছে, ১ এমডিবি রাষ্ট্রীয় তহবিল থেকে প্রায় ৬৮ কোটি ১০ লাখ ডলার বা ২৬০ কোটি মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত আত্মসাৎ করেছেন। ক্ষমতায় থাকাকালে ওই অর্থ জমা হয়েছে তার ব্যক্তিগত তহবিলে। তবে নাজিব রাজাক তার বক্তব্য খণ্ডন করে বার বারই বলছেন, ওই অর্থ সৌদি আরবের একটি রাজকীয় ডোনেশন বা দান। সেটাই তার ব্যক্তিগত একাউন্টে জমা হয়েছে। এই অর্থ ১এমডিবি তহবিল থেকে আসে নি। কিন্তু এখন মালয়েশিয়ায় নতুন প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ ক্ষমতায়। তার কাছে জবাব দিতে হচ্ছে নাজিবকে। এ মামলার তদন্ত নতুন করে চালু করেছে এমএসিসি। প্রাথমিকভাবে এক্ষেত্রে নজর দেয়া হচ্ছে এসআরসি ইন্টারন্যাশনাল থেকে এক কোটি ৬ লাখ ডলার কীভাবে নাজিবের ব্যাংক একাউন্টে জমা হয়েছে তার ওপর।

গত ৯ই মে’র নির্বাচনে ভয়াবহভাবে পরাজিত হয় নাজিব রাজাকের জোট। তাকে ঘায়েল করে আবার ক্ষমতার মসনদে বসে পড়েন সংস্কারবাদী জোটের নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ। মালয়েশিয়ার স্বাধীনতার ৬১ বছরের মধ্যে এই প্রথমবার ক্ষমতাসীন দলকে পরাজিত করে নাজিবের বিদায় ঘণ্টা বাজিয়ে দেয়। তার দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। ঘিরে রাখা হয়েছে তার বাসভবন। সেখানে অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করা হয়েছে স্বর্ণালংকার, নগদ অর্থ সহ বিভিন্ন সামগ্রী। তবে তার বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় ও জটিল যে অভিযোগ তা হলো তিনি রাষ্ট্রীয় তহবিল ‘১এমডিবি’ থেকে প্রায় ৭০ কোটি ডলার নিজের ব্যাংক একাউন্টে স্থানান্তর করেছেন। এ নিয়ে যখন তদন্ত শুরু হওয়ার কথা ঠিক তার আগে তিনি তদন্ত বিষয়ক শীর্ষ কর্মকর্তাদের হয়তো বরখাস্ত করেন না হয় তাদের প্রত্যাহার করেন না হয় তাদেরকে স্থানান্তর করেন।

ফলে তার বিরুদ্ধে যে তদন্ত হয়েছিল শুরুতে তা করেছেন তার আজ্ঞাবহরা। এ জন্য ওই তদন্তের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তাই ক্ষমতা থেকে নামার সঙ্গে সঙ্গে তিনি ও তার বিলাসী জীবনযাপনে অভ্যস্ত স্ত্রী রোজমাহ মানসুর যেন রাতারাতি খ্যাতির শিখর থেকে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। দুর্নীতির তদন্তকারী সংস্থা মালয়েশিয়ান এন্টি-করাপশন কমিশন (এমএসিসি) এ জন্য নাজিব রাজাককে প্রশাসনিক রাজধানী পুত্রজয়ায় তলব করে। তিনি মঙ্গলবার এর কাছে গিয়ে হেঁটে ওই অফিসের ভেতরে প্রবেশ করেন। এ সময় তাকে ঘিরে ছিলেন প্রায় ১০০ সাংবাদিক। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক তদন্ত অনুযায়ী, এসআরসি থেকে ৪ কোটি ২০ লাখ রিঙ্গিত স্থানান্তর হয়েছে নাজিব রাজাকের ব্যক্তিগত ব্যাংক একাউন্টে। ১ এমডিবি তহবিল থেকে প্রায় ৭০ কোটি ডলার স্থানান্তর হয়েছে সেখানে। তবে নাজিব কোনো অন্যায় করার কথা অস্বীকার করেছেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

এবার বহিষ্কার হচ্ছেন বি চৌধুরী!

ইসির বৈঠকে কূটনীতিকদের উদ্বেগ আসছেন ইইউ’র দুই বিশেষজ্ঞ

বিদায় রুপালি গিটারের ফেরিওয়ালা

তিনদিনে ডিজিটাল আইনে ১৬ মামলার আবেদন

সিলেটে সমাবেশের অনুমতি মিলেনি

জনমতের প্রকৃত প্রতিফলন দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র

আওয়ামী লীগ মাহবুব তালুকদারের পদত্যাগ চায় না

মহানবীর রওজা জিয়ারত করলেন প্রধানমন্ত্রী

সাড়ে ১৭ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য ঘাটতি

আওয়ামী লীগে স্বস্তি বিএনপিতে টানাপড়েন

আঞ্জু জানেন না স্বামী বেঁচে নেই

শেষ কলামেও গণমাধ্যমের স্বাধীনতার কথা লিখেছেন খাসোগি

সিলেটে চেয়ারম্যানপুত্রের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

ঢাকায় আকবরের নেটওয়ার্ক

এমপি রানার জামিন নামঞ্জুর

এরশাদের দিকে তাকিয়ে নেতাকর্মীরা