বিলবোর্ড সরানোর প্রতিবাদে বুলবুলের অবস্থান কর্মসূচি

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী থেকে | ২৩ মে ২০১৮, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:২৫
আসন্ন রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি-আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর ভোটের প্রচারণা শুধু প্রচারণায় সীমাবদ্ধ থাকছে না। তা রীতিমতো মুখোমুখি অবস্থানে রূপ নিয়েছে। অনেকটা জিরো টলারেন্স নীতির কারণে রাজনৈতিক অঙ্গনে উত্তাপ ছড়াচ্ছে। সম্প্রতি পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে নগরীর প্রাণকেন্দ্র সাহেববাজার এলাকায় সবুজ নগরী গড়ার, পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বান জানিয়ে সিটি করপোরেশনের মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের বাণী ও ছবি সংবলিত বিলবোর্ড সরিয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের বিলবোর্ড টাঙ্গানোর ঘটনায় দু’পক্ষের সমর্থকদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রতিবাদে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল দপুরে নগরীর সাহেববাজার এলাকায় আরডিএ মার্কেটের সামনের সড়কে বসে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। এ সময় বিএনপি-ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
খবর পেয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা সেখানে উপস্থিত হয় এবং মেয়র বুলবুলের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে।
বিএনপির নেতাকর্মীরা জানিয়েছে, মহানগর বিএনপির সভাপতি হিসেবে না মেয়র হিসেবে গত ১৭ই মে নগরবাসীকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা এবং সবুজ নগরী গড়ার, পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বান জানিয়ে রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের বাণী ও ছবি সংব্বলিত বিলবোর্ড টাঙ্গায় সিটি কর্পোরেশন। এদিকে গত সেমবার রাত ১০টার দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সে বিলবোর্ড সরিয়ে ওইস্থানে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের একটি বিলবোর্ড টাঙ্গিয়ে দেন। খবর পেয়ে মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল নিজে সেখানে উপস্থিত হন। একপর্যায়ে ছাত্রলীগের সঙ্গে মেয়র বুলবুলের সমর্থদের উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই সময়ই সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার মধ্যে বিলবোর্ড সরিয়ে ফেলার জন্য সময় বেঁধে দেন। অন্যথায় এর প্রতিবাদে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে তিনি নিজেই অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন বলে ঘোষণা দেন। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী লিটনের বিলবোর্ড সরিয়ে ফেলা হয়নি। তাই পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মেয়র বুলবুল আরডিএ মার্কেটের সামনে ৪ জন বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিরকে সঙ্গে নিয়ে রাস্তায় বসে অবস্থান কর্মসূচি পালন শুরু করেন। এমন খবর পেয়ে কয়েক মিনিটের মধ্যে মহানগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীররা সেখানে জড়ো হয়। দলে দলে সেখানে অবস্থান নিতে থাকে বিএনপির নেতাকর্মীরাও। এক পর্যায়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে ১২টা ৫০ মিনিটে মহানগর মেয়র বুলবুলসহ তার নেতাকর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দেন। বর্তমানে নগরজুড়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলসহ পুরো নগরজুড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
কর্মসূচি চলাকালে মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘এটা প্রতিবাদ। মানুষকে তো রাস্তায় থাকতে হবে। সব জায়গায় আওয়ামী লীগের দখলদারি চলছে। আমার ব্যানার সরিয়ে ফেলে তারা নিজেদের ব্যানার টাঙ্গিয়ে হীনমন্যতার পরিচয় দিয়েছে।’
এ বিষয়ে মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি রকি কুমার ঘোষের দাবি, জিরোপয়েন্ট এলাকার একটি বিলবোর্ডে সোমবার রাতে হঠাৎ করে মেয়র ও বিএনপি নেতা মোসাদ্দেক হোসেনের ব্যানার টাঙ্গানো হয়। অথচ সেখানে আগে থেকেই সাবেক মেয়র মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামানের একটি ব্যানার ছিল। ওই ব্যানার সরিয়ে বর্তমান মেয়রের ব্যানার টাঙ্গানোর খবর পেয়ে আমার সাধারণ সম্পাদক রাজীব আহমেদসহ কয়েকজন নেতাকর্মী ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় মেয়র বুলবুল সেখানে গিয়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গে তর্কে জড়ায়। পরে পুলিশ উভয়পক্ষকে সরিয়ে দিয়েছে।
মহানগর পুলিশের মুখপাত্র সিনিয়র সহকারী কমিশনার ইফতেখায়ের আলম মানবজমিনকে জানান, বিলবোর্ড টাঙ্গানো নিয়ে বর্তমান মেয়র সাবেক মেয়রের নেতাকর্মীদের মধ্যে কিছুটা উত্তেজনা দেখা দিয়েছিলো। পরে পুলিশ গিয়ে উভয়পক্ষকে সরিয়ে দিয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

খালেদার মুক্তির দাবিতে রিজভী’র নেতৃত্বে মিছিল

ঈদের দিন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা

ঈদের পর রাজপথ দখলে রাখবে আওয়ামী লীগ

নরসংদীতে দুই দল গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে নিহত ১,আহত ৩০

ফেরত যাওয়া রোহিঙ্গাদের নির্যাতন করছে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ

মুঠোফোন ক্ষতি করে চোখের, শুক্রাণুরও

পাটুরিয়ায় যানবাহনের লম্বা লাইন, ফেরি চলছে ধীর গতিতে

কোটা আন্দোলনের আরও ১০ শিক্ষার্থী কারামুক্ত

মনবন্ধু আমাকে রেখে পাড়ি জমালো

শহিদুল আলমকে ভয় পায় কে?

কলকাতায় বাংলা ধারাবাহিকের শুটিং বন্ধ

ঘটনা ধামাচাপা দিতে জজমিয়া নাটক সাজানো হয়েছিল

গোপালগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যাংক কর্মকর্তাসহ নিহত ৫

জামালকে দেখতে ভিড়, তুলছেন সেলফিও

সন্তান জন্ম দিতে সাইকেলে করে হাসপাতালে গেলেন এক মন্ত্রী

শেষ মুহূর্তের পশুর হাট, ক্রেতা বেশি দামে ভাটা