রমজানে যানজট এড়াতে ডিএমপির ১৪ পরামর্শ

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মে ২০১৮, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:২৪
রমজান আসলেই রাজধানীতে তীব্র আকার ধারণ করে যানজট। চলতি রমজানের শুরু থেকেও একই পরিস্থিতি বিরাজ করছে। রোজা গড়াতেই আরো ভয়াবহ যানজটের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। এ অবস্থায় যানজট নিরসনে হিমশিম খাচ্ছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি)  ট্রাফিক বিভাগ। পুলিশ এখন তাদের প্রচেষ্টার পাশাপাশি সচেতনতার ওপর জোর দিয়েছে। চেয়েছে নগরবাসীর সহযোগিতা। যানজট নিরসনে ১৪টি পরামর্শ দিয়ে তা মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছে ডিএমপি।
রমজানে যানজট এড়াতে ডিএমপির পরামর্শগুলো হলো- ইফতারের আগে বাড়ি ফিরতে হবে- এমন মনোভাব নিয়ে উল্টো পথে গাড়ি চালানো থেকে বিরত থাকা, ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য করে গাড়ি চালানোর চেষ্টা করে যানজট সৃষ্টি না করা, কোনো অবস্থাতেই যানজটের কারণ না হওয়ার প্রত্যয়ে গাড়ি চালানো, অযথা গাড়ির হর্ণ না বাজানো, তাড়াহুড়ো করে না চালিয়ে নিয়ম মেনে নির্ধারিত গতিতে গাড়ি চালানো, চলাচলের স্বাভাবিক গতি রোধ না করে উল্টোমতো গাড়ি রেখে রাস্তা সংকীর্ণ না করা, মার্কেট ও শপিংমলের সামনে গাড়ি পার্কিং করা থেকে বিরত থাকা, লক্কড়-ঝক্কর ও ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় না নামানো, নির্ধারিত স্থান ছাড়া রাস্তার যেখানে সেখানে যাত্রী উঠানামা না করানো।
ডিএমপির ১৪ পরামর্শের বাকিগুলো হলো- সরকারি সিদ্ধান্ত ও মোটরযান আইন মেনে গাড়ি চালানো, বেশি যাত্রীর আশায় রাস্তায় অযথা গাড়ি দাঁড় করিয়ে চালকদের যানজট সৃষ্টি না করা, রাস্তা পারাপারে ফুটওভার ব্রিজ, আন্ডারপাস ও জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার, ভিআইপি ও অতি ব্যস্ত সড়কে রিকশা, ভ্যান, ঠেলাগাড়ির মতো ধীরগতির বাহন না চালানো এবং রাস্তা ও ফুটপাথে দোকানপাট না বসানো।
ডিএমপি’র মিডিয়া বিভাগের উপ- কমিশনার মো. ওবায়দুর রহমান মানবজমিনকে বলেন, রমজানে ইফতারের আগে ঘরে ফেরার তাগিদ থাকে। দৈনন্দিন কাজেও আগে যাওয়ার তাড়না প্রকট থাকে। তাই সুবিধামতো দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছুতে গিয়ে আরো বেশি যানজটের সৃষ্টি হয়। অনেক ক্ষেত্রে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করে। এই সচেতনতাটুকু থাকলে যানজট কমবে। এ অবস্থায় সচেতনতাই যানজট নিরাসনের মূল পন্থা। একটু সচেতনতার সঙ্গে ডিএমপির পরামর্শগুলো মেনে গাড়ি ও পথচারী চলাচল করলে রমজানে যানজট অনেকাংশে এড়ানো যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

এমন নির্বাচন হওয়া উচিত যাতে বৈধতার সংকট থেকে শাসনব্যবস্থা মুক্ত হয়

সেপ্টেম্বরে খাসোগি হত্যার নীলনকশা তৈরি হয়

খালেদা জিয়ার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চায় দুদক

মানহানির মামলায় মইনুল হোসেন কারাগারে

মইনুলকে গ্রেপ্তার জরুরি ছিল- কাদের

ঢাবি’র ‘ঘ’ ইউনিটের উত্তীর্ণদের নিয়ে আবার পরীক্ষা

সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপে ড. কামালের উদ্বেগ

সেলিম ওসমানকে অব্যাহতি

কোটা আন্দোলনের চার নেতাকে ছাত্রলীগের মারধর

জয়-পরাজয়ে অন্তরায় কোন্দল

পার্বত্য অঞ্চলের শান্তিতে হুমকি ৯৬৯-এর তৎপরতা

সিলেটে রাতে ধরপাকড়ের অভিযোগ

সিলেটে মাজার জিয়ারতে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা ( ভিডিও)

এবার মোবাইল অ্যাপ দেবে অ্যাম্বুলেন্সের সন্ধান

মধ্যরাতে তরুণীর সঙ্গে পুলিশের অশোভন আচরণ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ

সৌদিতে ‘যৌনদাসী’ হিসেবে বিক্রি হচ্ছে বাংলাদেশি নারীরা