সরাইলে বৃদ্ধ খুন

বাংলারজমিন

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি | ১৭ মে ২০১৮, বৃহস্পতিবার
ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বৃদ্ধ আবদুল খালেক (৫৫)। বাড়ি উপজেলার পল্লী এলাকা পাকশিমুলের ব্রাহ্মণগাঁও গ্রামে। অনেক কষ্টে বড় ছেলে শাহ আলমকে পাঠিয়েছেন প্রবাসে। সংসারের কষ্ট দূর করতে আরেক ছেলে শফিক আলমকে (২৪) বিদেশ পাঠানোর স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন ৩ বছর আগে। ছেলেকে বিদেশ পাঠাতে আপন চাচাত ভাই আবদুল কুদ্দুছের (৬০) সহায়তা নেন। কুদ্দুছের ভাগ্নির জামাতা চুন্টার পালপাড়ার মকবুল থাকেন মালদ্বীপে।
কুদ্দুছের মাধ্যমে শফিককে মালদ্বীপ নেয়ার জন্য মকবুলকে টাকা দেন খালেক। দুই বছর হলো। শফিককে বিদেশ নিচ্ছেন না। টাকাও ফেরৎ দিচ্ছেন না। শুধু তারিখ দিয়ে ঘুরাচ্ছেন। একাধিক সালিশ হয়েছে। হয়েছে মামলাও। এ ঘটনার জের ধরেই গত মঙ্গলবার বিকেলে আবদুল কুদ্দুছ ও খালেকের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় খালেক মারা যায়। ছেলেকে বিদেশ পাঠানোর স্বপ্ন অপূরণীয়ই থেকে গেল খালেকের। গতকাল পুলিশ কুদ্দুছের স্ত্রী আনোয়ারা বেগমকে (৫৪) গ্রেপ্তার করেছে। সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মফিজ উদ্দিন ভূঁইয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিদেশ পাঠানোর টাকা ও জায়গা জমির বিরোধে তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল।
গত মঙ্গলবার বিকেলে ২ পরিবারের মারামারির ঘটনায় আহত খালেক জেলা সদর হাসপাতালে মারা গেছেন। ময়না তদন্তের পক্রিয়া চলছে। এখনো মামলা হয়নি।    

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বাজপেয়ী প্রয়াত

কোটা আন্দোলনের নেত্রী লুমা রিমান্ডে

তাদের উদ্দেশ্য কি?

ওয়ান ইলেভেনের ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি

সাইবার হামলার আশঙ্কায় সব ব্যাংকে সতর্কতা জারি

ঢাকার নিন্দা বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতকে তলব

বাংলাদেশে বাকস্বাধীনতা ও প্রতিবাদের অধিকারের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন

আমীর খসরুকে দুদকে তলব

রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন ও রাশিয়ার অবস্থান পাল্টায়নি এখনো

মহাসড়কে যানজট ঈদযাত্রার আগেই ভোগান্তি

যুবলীগ নেতার গ্রেপ্তার দাবিতে সড়কে এমপি

স্ত্রী-সন্তানের সঙ্গে ঈদ করা হলো না প্রবাসী নাছিরের

অতিরিক্ত গচ্চা ১১১ কোটি টাকা

পেট্রোবাংলার ৭ কর্মকর্তাকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন আজ

লুমা রিমান্ডে, ১২ ছাত্রের জামিন নামঞ্জুর