ফের আইসিসির চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৬ মে ২০১৮, বুধবার
ফের দুই বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থার (আইসিসি) চেয়াম্যান হলেন শশাঙ্ক মনোহার। এর আগে ২০১৬তে দুই বছরের জন্য আইসিসির চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। আগামী জুনে আইসিসির বার্ষিক সম্মেলনে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন। কিন্তু মনোহর ছাড়া অন্য কোন প্রতিদ্বন্ধী না থাকায় ভোটাভুটির ঝামেলায় যেতে হয়নি আইসিসিকে। আগেভাগেই চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে মনোহরকে। ফলে ২০২০ পর্যন্ত তিনিই থাকবেন এ আসনে। ২০১৬তে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতির পদ ছেড়ে আইসিসির চেয়ারম্যান হয়েছিলেন শশাঙ্ক মনোহর। ছয় মাস পরেই অবশ্য তিনি ব্যক্তিগত কারণে আসনটি ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন।
কিন্তু আইসিসির অন্য সদস্যদের অনুরোধে শেষ পর্যন্ত তেমনটা করেননি। এরপর আরো একবার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেয়ার কথা জানালেও শেষ পর্যন্ত থেকেই গেলেন আইসিসির চেয়ারম্যান পদে। মনোহরের এই মেয়াদে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসিতে এসেছে বেশ কিছু বড় পরিবর্তন। আইসিসির সংবিধান ও গঠন-কাঠামো ঢেলে সাজানো হয়েছে। সদস্য দেশগুলোর মধ্যে আর্থিক সুযোগ সুবিধার নতুন কাঠামো তৈরি হয়েছে। মেয়েদের ক্রিকেটকে আরো জনপ্রিয় করে তোলার লক্ষ্যে একজন নারী পরিচালকের পদও তৈরি হয়েছে আইসিসিতে। এ বছরের শুরুতে আইসিসির প্রথম স্বাধীন নারী ডিরেক্টর হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় ইন্দ্র নুয়িকে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ইসি ঘেরাও কর্মসূচিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট

গণমাধ্যমের হাত-পা বেঁধে ফেলতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন : রিজভী

বন্দরে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার

এসকে সিনহা মনগড়া কথা বলছেন

সরকারি কর্মকর্তাদের বিমানের ফ্লাইটে যাতায়াত বাধ্যতামূলক

‘প্রকাশের আগে ভাবিনি এত সাড়া মিলবে’

মহানগর নাট্যমঞ্চে জাতীয় ঐক্যের সমাবেশে যোগ দেবে বিএনপি

যে ২৩ দেশে তিন তালাক নিষিদ্ধ

মেলবোর্নে সন্ত্রাসের অভিযোগ স্বীকার করল বাংলাদেশের সোমা

বঙ্গবন্ধু মহাবিদ্যালয়ের নাম মুছে হলো এমপির নাম,প্রতিবাদে মানববন্ধন

চকরিয়ায় যুবকের মাথা ন্যাড়া করলেন পৌর কাউন্সিলর

এলকোহল মিশ্রিত পানীয় পানে বাংলাদেশী সহ ২১ জনের মৃত্যু মালয়েশিয়ায়

যাত্রীসাধারণের প্রতিকারের পথ রুদ্ধ করা হলো

মায়ার জীবনে যা ঘটেছে, তা ছিল মিরাকল!

বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস

কেউ বলতে পারবে না কারো গলা টিপে ধরেছি, বাধা দিয়েছি