পশ্চিমবঙ্গের সাবেক অর্থমন্ত্রী অশোক মিত্রের জীবনাবসান

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১ মে ২০১৮, মঙ্গলবার
বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও পশ্চিমবঙ্গের সাবেক অর্থমন্ত্রী অশোক মিত্রের জীবনাবসান হয়েছে। মে দিবসের সকালে চিরঘুমে চলে গেলেন জাগ্রত বিবেক ও কমিউনিষ্ট মতবাদে বিশ্বাসী এই মানুষটি। দক্ষিণ কলকাতার একটি নার্সিংহোমে টানা বেশ কিছু দিন তিনি ভর্তি ছিলেন। সেখানেই মঙ্গলবার সকাল ৯ টা নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়। বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। অশোকবাবুর স্ত্রী প্রয়াত হয়েছেন ১০ বছর আগেই।
১৯৭৭ সালে বামফ্রন্ট সরকার রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর প্রথম প্রায় ১০ বছর অর্থ দপ্তরের ভার সামলে ছিলেন অশোকবাবু। তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর সঙ্গে তাঁর মতান্তরের কারণে মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দিয়ে সরে দাঁড়িয়েছিলেন। তবে কমিউনিস্ট ভাবনা-চিন্তা এবং ‘বিকল্প অর্থনীতি’-র ভাবনা থেকে নিজেকে কখনও বিচ্ছিন্ন করেননি। অসুস্থ শরীরেও ধারাবাহিক ভাবে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় কলম চালিয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে বাম সরকারের নীতির কঠোর সমালোচনা করেছেন, কিন্তু, কখনো প্রকাশ্যে কোনও ব্যক্তি আক্রমণ করেননি। বিধানসভা, রাজ্যসভার সদস্য হলেও একসময় রাজনীতির পাট চুকিয়ে তিনি নিজেকে নিবিষ্ট করেছিলেন লেখালিখিতে। বাংলা ও ইংরাজি দুই ভাষায় লেখালিখিতে সাবলীল ছিলেন। বেশ কয়েকটি বইও লিখেছেন। বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য পেয়েছেন সাহিত্য আকাডেমি পুরস্কার। সম্পাদনা করেেেছন সাহিত্য-সাংস্কৃতিক পত্রিকাও। ১৯২৮ সালে পূর্ববঙ্গে জন্মেছিলেন এই অর্থনীতিবিদ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হওয়ার পর ১৯৪৭ সালে ভারতে চলে আসেন তিনি। বারাণসী হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর পাশ করেন । ১৯৫৩ সালে রটারডাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট পান অশোকবাবু। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে পড়িয়েছেন। বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। ইন্দিরা গান্ধীর আমলে কেন্দ্রীয় সরকারের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ছিলেন। নীতিগত প্রশ্নে কট্টরপন্থী ছিলেন বলেই অপ্রিয় কথা মুখের উপর বলে দিতেন। তিনি বলতেন, আমি একজন ভদ্রলোক নই, আমি একজন কমিউনিষ্ট।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন