ঢাকায় বিক্ষোভ

খালেদাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন বিএনপির নতুন কর্মসূচি

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ এপ্রিল ২০১৮, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৯
কারাগারে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে উদ্বিগ্ন বিএনপি। কয়েকদিন আগে দলের তিন সিনিয়র নেতা ও আত্মীয়স্বজনকে অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ দেয়নি কারাকর্তৃপক্ষ। এমন পরিস্থিতিতে শনিবার বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির জরুরি বৈঠক হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ৭ দিনের শান্তিপূর্ণ নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। পাশাপাশি সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে ইউনাইটেডসহ বিশেষায়িত কোনো হাসপাতালে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেয়ার দাবি জানিয়েছেন দলটির দুই সিনিয়র নেতা। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবিতে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই রাজধানীর বাড্ডায় বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে দলের ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা।
গতকাল দুপুরে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে মধ্যবাড্ডা এলাকায় এ বিক্ষোভ মিছিল হয়। বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মির্জা আলমগীর বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। তিনি গুরুতর অসুস্থ। সেখানে তাকে সুচিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। আমরা দেশনেত্রীকে মুক্তি দিয়ে তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসা করার সুযোগ দেয়ার দাবি জানাচ্ছি। পরে বাড্ডার হোসেন মা?র্কেটের সাম?নে থেকে শুরু হ?য়ে মধ্য বাড্ডায় গি?য়ে শেষ হয় মিছিলটি। বিক্ষোভ মিছিলে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, জাসাসের সাধারণ সম্পাদক হেলাল খান, মহিলা দল সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, ঢাকা মহানগর বিএনপি উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান, সহসভাপতি মুন্সি বজলুল বাসিত আঞ্জু, ঢাকা মহানগর উত্তর সহসভাপতি আতিকুল ইসলাম মতিন, ফেরদৌসী আহমেদ মিষ্টি, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম পারভেজ, এজিএম সামসুল হক, কফিল উদ্দিন, মাহফুজুর রহমান চেয়ারম্যান, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদল সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর, ঢাকা মহানগর উত্তর যুুবদল সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক শরিফউদ্দিন জুয়েল, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আক্তার হোসেন, সৈয়দ মনজুর হোসেন, সোহেল রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক তহিরুল ইসলাম তুহিন, মাহবুবুল করিম জাফর, প্রকাশনা সম্পাদক মশিউর রহমান বাবু, স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি ফখরুল ইসলাম রবিন, সাধারণ সম্পাদক গাজী রেজোয়ান হোসেন রিয়াজ, মহিলা দল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি পেয়ারা মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক আমেনা বেগম, ছাত্রদল ঢাকা মহানগর উত্তরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন সৈকত, সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন রুবেল, ছাত্রদল পশ্চিমের সভাপতি কামরুজ্জামান জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক সাফায়েত রাব্বী আরাফাতসহ ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন। মিছিলে নেতাকর্মীরা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড নিয়ে মুহুর্মুহু স্লোগানে মুখরিত করে তোলে। ওদিকে শনিবার রাতে অনুষ্ঠিত বিএনপি স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গতকাল সচিবালয়ে গিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন দলের দুই সিনিয়র নেতা। বৈঠকে তারা খালেদা জিয়াকে বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়ার জন্য দাবি জানান। এর আগে গতকাল সকালে দলের নয়া পল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ৭ দিনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএনপি। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, আগামী ২৫শে এপ্রিল ঢাকাসহ সারা দেশে মহানগর ও জেলা সদরে মানববন্ধন এবং ২৭শে এপ্রিল কারাবন্দি খালেদা জিয়ার আশু আরোগ্য কামনায় মসজিদে মসজিদে বাদ জুমা দোয়া মাহফিল করবে বিএনপি। ২২শে এপ্রিল ঢাকা মহানগর উত্তর, ২৩শে এপ্রিল মহানগর দক্ষিণ, ২৬শে এপ্রিল ছাত্রদল, ২৮শে এপ্রিল যুবদল ও ২৯শে এপ্রিল স্বেচ্ছাসেবক দল সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি করবে। কর্মসূচি ঘোষণার পর রিজভী সাংবাদিকদের বলেন, গণতন্ত্রের মাতা দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজানো মামলায় কারারুদ্ধ করে রেখেছে সরকার। তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে এই কর্মসূচি হবে। এ ছাড়া ১লা মে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিক সমাবেশ করবে শ্রমিক দল। এ সময় দলের যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আবদুস সালাম আজাদ, মনির হোসেন, শওকত শাহিন ও সেলিমুজ্জামান সেলিম উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানোর পর ধারাবাহিকভাবে একেরপর এক শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনগুলো। এই দাবিতে গত ৩রা এপ্রিল সর্বশেষ সারা দেশে থানায় থানায় বিক্ষোভ কর্মসূচি করেছিল বিএনপি। এর আগে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি ঢাকাসহ সারা দেশে পর্যায়ক্রমে বিক্ষোভ, মানববন্ধন, গণঅনশন, গণস্বাক্ষরতা, জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি পেশের মতো শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির পাশাপাশি চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, বরিশাল ও রাজশাহী বিভাগীয় শহরগুলোতে সমাবেশ করছে। তবে পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় কয়েক দফায় তারিখ ঘোষণা করেও রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা করতে পারেনি বিএনপি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গাজীপুরে খুলনার মতো নির্বাচন করতে পারবে না: মোশাররফ

বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধন করলেন হাসিনা ও মোদি

বৈঠকে বসছে ইরান চুক্তির অংশীদাররা

সীমান্তে ‘অবৈধ বাংলাদেশী’ ঠেকাবে উলফা: অনুপ চেটিয়া

শান্তিনিকেতনের আম্রকুঞ্জে ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী হাসিনা-মোদি-মমতা

কানাডার রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণ, আহত ১৫

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যে কোন সময় আলোচনায় বসতে রাজি উত্তর কোরিয়া

সারাদেশে বন্দুকযুদ্ধে নিহত আরো ৮

‘সবাই জানে আমার বয়ফ্রেন্ড আছে’

বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বোকা বানালেন ‘ভুয়া কলার’

মমতা শনিবার একান্তে বৈঠক করবেন হাসিনার সঙ্গে

দোলাচলে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার

সিটি নির্বাচনে প্রচারণার সুযোগ এমপিদের

আমি যদি প্রধানমন্ত্রী হতাম

পুলিশ কি ওখানে জুঁই ফুলের গান গাইবে?

‘বন্দুকযুদ্ধে’ মৃতের সংখ্যা অর্ধশতাধিক