পশ্চিমবঙ্গে ১১ জন জনপ্রতিনিধি নারী নির্যাতনে অভিযুক্ত

বিশ্বজমিন

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৯ এপ্রিল ২০১৮, বৃহস্পতিবার
ভারতে নাবালিকা ধর্ষন ও নারীদের বিরুদ্ধে হেনস্থা করার অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় চলছে। আর ঠিক এই সময়ই জানা গেছে, ভারতের ৪৮ জন জনপ্রতিনিধি নারীদের বিরুদ্ধে নানা অপরাধে অভিযুক্ত। এই অপরাধের মধ্যে যেমন রয়েছে ধর্ষণ, তেমনই আছে শ্লীলতাহানি, যৌন নিগ্রহ বা অপহরণের মতো ঘটনা। আর পশ্চিমবঙ্গের ১১ জন জনপ্রতিনিধিও নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধে তালিকায় রয়েছেন। সম্প্রতি এই তথ্য সামনে এনেছে অ্যাসসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস বা এডিআর এবং ন্যাশনাল ইলেকশন ওয়াচ। এডিআর-এর নতুন তথ্যে জানানো হয়েছে, সারা দেশের সব রাজ্য মিলিয়ে বর্তমান নির্বাচিত জন প্রতিনিধিদের মধ্যে ৪৫ জন বিধায়ক এবং ৩জন সাংসদ এধরনের অভিযোগে অভিযুক্ত।
তাঁদের মধ্যে ২৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। অথচ গত পাঁচ বছরে দেশের বিভিন্ন নামকরা রাজনৈতিক দলের টিকিটে তাঁরা প্রার্থী হয়ে জিতেছেন। যেমন গত বছর গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির জি আহির জিতেছিলেন সেহরা কেন্দ্র থেকে। ২০১৪ সালে টিডিপি-র জি সূর্যনারায়ণ জিতেছিলেন ধর্মাভরম কেন্দ্র থেকে। ২০১৫ সালে আরজেডির গুলাব জিতেছিলেন ঝঞ্ঝারপুর কেন্দ্র থেকে। এই তিন বিধায়কই ধর্ষণে অভিযুক্ত। এধরনের অভিযোগের তালিকার শীর্ষে রয়েছে বিজেপি শাসিত রাজ্য মহারাষ্ট্র। সেখানে অভিযুক্ত সাংসদ এবং বিধায়কদের সংখ্যা ১২। তারপরই রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস শাসিত পশ্চিমবঙ্গ, সেখানে অভিযুক্তদের সংখ্যা ১১। তারপর রয়েছে ওড়িশা এবং অন্ধ্রপ্রদেশ। সেখানে অভিযুক্তদের সংখ্যা রাজ্য প্রতি পাঁচজন। এডিআর-এর রিপোর্টে রাজনৈতিক দলগুলিকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, তারা যেন এ ধরনের অভিযুক্ত নেতাদের টিকিট না দেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন