ইরাকে ৩ শতাধিক আইএস জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৯ এপ্রিল ২০১৮, বৃহস্পতিবার
জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে সম্পর্ক থাকায় ইরাকে কমপক্ষে ৩০০ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে কয়েক ডজন বিদেশী। ইরাকের বিচার বিভাগের সূত্র এ কথা জানিয়েছে বুধবার। অভিযুক্ত এসব ব্যক্তির বিচার হয়েছে দুটি আদালতে। একটি আদালত জিহাদিদের শক্ত ঘাঁটি মসুলের কাছে। অন্যটি বাগদাদে। সেখানে বিদেশী ও নারীদের বিচার করা হয়। জানুয়ারি থেকে ইরাকের রাজধানী বাগদাদে ৯৭ বিদেশী নাগরিককে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে।
অন্যদিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়েছে ১৮৫ জনকে। অভিযুক্ত নারীদের মধ্যে বেশির ভাগই তুরস্কের এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের। জানুয়ারিতে ইরাকের একটি আদালত জার্মানির এক নারীকে আইএসের সঙ্গে জড়িত থাকার তথ্যপ্রমাণ পায়। অন্যদিকে মঙ্গলবার ফ্রান্সের এক নারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়। ইরাকের সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের মুখপাত্র আবদেল সাত্তার বায়রাকদার এক বিবৃতিতে বলেছেন, মসুলের কাছে তেল কাইফের আদালতে ২১২ জনকে দেয়া হয়েছে মৃতু্যৃদণ্ড। এ ছাড়া ১৫০ জনকে দেয়া হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদন্ড। জেল দেয়া হয়েছে ৩৪১ জনকে। উল্লেখ্য, ডিসেম্বরে আইএসমুক্ত ঘোষণা করা হয় ইরাপককে। এক সময় এই আইএস দেশটির এক তৃতীয়াংশ নিয়ন্ত্রণ করতো।  সোমবার সেখানকার আইনমন্ত্রী বলেছেন, সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত ১১ জনের ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kurden

২০১৮-০৪-১৯ ১৬:৪৩:২৭

এর মধ্যে কতজন নিরীহ সুন্নিকে ফাঁসি দিয়েছে শিয়ারা এইটাই মূল কথা। মসুল দখলের পর অনেক সুন্নিকেই গুলি করে হত্যা করছে শিয়ারা।

আপনার মতামত দিন

দেশের স্বার্থে নতুন মেরূকরণ হতে পারে

এমপিদের লাগাম টানছে না ইসি

স্টিয়ারিং কমিটিতে যারা থাকছেন

এনডিআই-এর নির্বাচনী ২০ দফা

সিলেটে একদিন পিছিয়েও সমাবেশের অনুমতি পায়নি ঐক্যফ্রন্ট

জাপার দুর্গে আওয়ামী লীগের দৃষ্টি

শিক্ষকদের সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

সৌদি আরবে শঙ্কায় লাখ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক

তিন জেলায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৪

তিনদিনের সফরে ঢাকায় এলিস ওয়েলস

টাঙ্গাইলে দীপু মনির জনসভা বাতিল, উত্তেজনা

খাসোগি হত্যার দায় স্বীকার সৌদির

ল্যান্ডমার্ক ম্যাচে মাশরাফিদের অন্য ‘লড়াই’

জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট ঘোষণা

‘ক্ষমতায় গেলে ৭ দিনের মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল’

‘ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই’