সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের হামলা

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৪ এপ্রিল ২০১৮, শনিবার, ১২:৫০ | সর্বশেষ আপডেট: ১:১৮
সিরিয়ায় সরকার বিরোধীদের উপর রাসায়নিক হামলার দায়ে সরকার নিয়ন্ত্রিত এলাকার বিভিন্ন স্থাপনায় হামলা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স। পূর্ব ঘৌটায় সরকার বিরোধীদের উপর রাসায়নিক হামলার দায়ে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রা¤প শনিবার প্রথম প্রহরে মার্কিন বাহিনীকে  হামলা শুরুর আদেশ দেন বলে জানিয়েছে রয়টার্স।
রাসায়নিক হামলা বন্ধ না করা হলে দেশটির উপর হামলার হুঁশিয়ারি আগে থেকেই দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রা¤প। এবার হামলা শুরুর পর তিনি জানিয়েছেন বাসার আল আসাদ রাসায়নিক হামলা বন্ধ না করা পর্যন্ত মার্কিন বাহিনীর এ হামলা অব্যাহত থাকবে। আর এর সঙ্গে সহমত প্রকাশ করেছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁও।
তবে সিরিয়ার গণমাধ্যম এ হামলাকে আন্তর্জাতিক আইনের চরম লঙ্ঘন আখ্যা দিয়ে এ হামলা ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়েছে। এদিকে সিরিয়ায় তিন যৌথ বাহিনীর এ হামলার কারণ হিসেবে পশ্চিমা গণমাধ্যমকে দোষারোপ করছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা।
সিরিয়াতে যখন শান্তির সূচনা হচ্ছিল ঠিক এমন সময়ে যৌথ বাহিনী এমন হামলা চালনা করলো বলেও জানিয়েছেন তিনি।
প্রসঙ্গত, গত সাত বছর ধরে সিরিয়াতে গৃহযুদ্ধ চলমান রয়েছে। আর সরকার বিরোধীদের দমনে তাদের সহায়তা করছিল মিত্র রাষ্ট্র রাশিয়া।

[পিসি]

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

টিএসসির সেই চুমুর দৃশ্য এখন ভাইরাল

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক চলছে

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলায় আসকের উদ্বেগ

বিশেষ ক্ষমতা আইনের বিলুপ্ত ধারায় মামলা না নেয়ার নির্দেশ

ইমরান এইচ সরকারকে বিদেশে যেতে বাধা না দেয়ার নির্দেশ

‘মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলাকারীকে খুঁজে বের করা হবে’

অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় দুই নারীকে প্রকাশ্যে নির্যাতন

নর্থ সাউথের নিখোঁজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার

ইউনাইটেডে যেমন আছেন মাহমুদুর রহমান

চীনে চাইলেই বিবাহ বিচ্ছেদ নয়

নেতাকর্মীকে থানায় নিলে থানা ঘেরাও করতে হবে

চট্টগ্রাম পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে আগুন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন,'সেফলি বের হয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করছি'

গুলশান হামলায় ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

সিলেটে গণগ্রেপ্তারের অভিযোগ আরিফের

আইএমএফ প্রধানকে নিয়ে বিমানের জরুরি অবতরণ