নার্ভ গ্যাস প্রয়োগ করা হয়েছে রাশিয়ান গুপ্তচরের ওপর

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৮ মার্চ ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৪৪
বৃটেনে রাশিয়ান গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ে ইউলিয়ার ওপর ‘নার্ভ গ্যাস’ প্রয়োগ করা হয়েছে। এই গ্যাস প্রয়োগ করে তাদের ¯œায়ুতন্ত্রকে বিকল করে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে বলে বলছে বৃটিশ পুলিশ। এ ঘটনায় তোলপাড় চলছে। সন্দেহের আঙ্গুল তোলা হয়েছে রাশিয়ার দিকে। কিন্তু রাশিয়া বলছে, এটা হলো বৃটিশদের একটা ‘হাইপ’। সাবেক কেজিবির একজন কর্নেল তো বলেই দিয়েছেন, সামনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের নির্বাচন। ওই নির্বাচনে তার ক্ষতি করতে ওই গুপ্তচরের ওপর বিষাক্ত পদার্থ প্রয়োগ করা হয়েছে। গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ের ওপর কোন ধরনের নার্ভ গ্যাস প্রয়োগ করা হয়েছে তা যাচাই করে দেখছে বৃটিশ পুলিশ।
তাদেরকে বৃটেনের সালিসবারির একটি দোকান থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। সেখানে তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ ছাড়া তাদেরকে উদ্ধার করতে যে পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনিও সংক্রমিত হয়েছেন। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক। বিবিসি নিউজকে একটি সূত্র বলেছেন, রোববার ওই ব্যক্তিদের ওপর যে নার্ভ গ্যাস ব্যবহার করা হয়েছে তা বিরল। এর আগে সারিন গ্যাস বা ভিএক্স নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করা হয়েছিল। কিন্তু এবারেরটা তার থেকে ভিন্ন। এ নিয়ে হাউজ অব কমন্সে বিবৃতি দেয়ার কথা রয়েছে বৃটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আম্বার রাডের। পুলিশ বলছে, বৃটিশ সরকারের বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত হয়েছেন যে, তাদের ওপর নার্ভ গ্যাস প্রয়োগ করা হয়েছিল। তবে এসব নিয়ে বিস্তারিত তথ্য এখনই জনসম্মুখে প্রকাশ করা হবে না। উল্লেখ্য, রাশিয়ার গুপ্তচর ৬৬ বছর বয়সী কর্নেল স্ক্রিপাল বৃটেনের পক্ষে কাজ করছিলেন। তিনি গোপন তথ্য প্রকাশ করে দিতেন বৃটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআই ৬-এর কাছে।
নার্ভ এজেন্ট কী?
বিবিসি লিখেছে, নার্ভ এজেন্ট হচ্ছে উচ্চ-ক্ষমতাসম্পন্ন বিষাক্ত রাসায়নিক যা স্নায়ুুতন্ত্রকে বিকল বা অকার্যকর করে দিতে পারে এবং দৈহিক কর্মক্ষমতা বন্ধ হয়ে যেতে পারে। সাধারণভাবে মুখ অথবা নাক দিয়ে এই রাসায়নিক দেহে প্রবেশ করানো হয়। কিন্তু চোখ বা ত্বক তা শোষণ করতে পারে। কাউন্টার টেররিজম পুলিশিং ইউনিটের প্রধান মার্ক রাউলি বলেছেন, সরকারি বিজ্ঞানীরা শনাক্ত করেছেন যে তাদের ক্ষেত্রে নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করা হয়েছে। নার্ভ এজেন্ট সাধারণভাবে ক্রিমিনাল গ্যাং বা সন্ত্রাসী গ্রুপগুলো তৈরি করতে পারে তেমনটি নয়। বিশেষ গবেষণাগারে সরকারি নিয়ন্ত্রণে এই রাসায়নিক গ্যাস উৎপাদন করা হয়। এখন এর অবশ্যম্ভাবী সন্দেহ পড়বে রাশিয়ার দিকে। কারণ তাদের শত্রুদের বিষ প্রয়োগে হত্যার রেকর্ড আছে। শুধু তাই নয়, সের্গেই স্ক্রিপাল-এর ঘটনার সাথে অন্য মোটিফও আছে। রাশিয়ার একজন সামরিক গোয়েন্দা হিসেবে নিজের দেশের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে তিনি এমআই-সিক্সকে তথ্য দিতেন, ইউরোপে রাশিয়ার এজেন্টদের সম্পর্কে। বিশ্বাসঘাতকদের হত্যার বিষয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন অতীতের এমন ইঙ্গিতও রয়েছে। যদিও স্ক্রিপাল যখন বৃটেনে আট বছর ধরে বসবাস করছিলেন তেমন সময় কেন তাকে হামলার শিকার হতে হল সে প্রশ্নও রয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

এরশাদ বিদেশে, দায়িত্বে কে?

টেলি সামাদ গুরুতর অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি

সিলেট থেকে শুরু হবে ধানের শীষের প্রচারণা

নির্বাচনে আপনারা তো ইনশাআল্লাহ হেরে যাচ্ছেন

জেনুইন নির্বাচন চেয়ে ইউরোপীয় দূতদের বিবৃতি

কাদের-ফখরুল পাল্টাপাল্টি

কাল থেকে নির্বাচনী প্রচারে নামছেন হাসিনা

চূড়ান্ত লড়াইয়ে ১৮৪১ প্রার্থী, স্বতন্ত্র ৯৬

খালেদার রিটে আদেশ আজ

দশ দিনের জন্য সেনা মোতায়েনের পরিকল্পনা

টুকু ও দুলুর মনোনয়ন গ্রহণের নির্দেশ

চট্টগ্রাম-২ আসনে আপেল নিয়ে নৌকার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের পেয়ারুল

ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় গেলে ডিজিটাল আইন বাতিল করা হবে: ফখরুল

দেশ ক্রমশ রক্তপাতের দিকে যাচ্ছে

সিঙ্গাপুর নেয়া হয়েছে জাহাঙ্গীরের ছেলে ওয়াহিদ জামানকে

নৌকা মার্কায় ভোট চাই- সালমান এফ রহমান