‘বাবার বাড়ির চেয়েও এখানে সুখী’

খেলা

| ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, শনিবার
সৈয়দা রাবেয়া নাঈমা ক্রিকেট বুঝেন না। যে তাসকিনের পেছনে তরুণী ও কিশোরীরা মরিয়া হয়ে ঘোরে, সেই তাসকিনকে একটা সময় তিনি পাত্তাই দিতেন না। কিন্তু যখন সম্পর্ক হয়েছে তারপর থেকে নিজের ভালোবাসা দিয়ে আগলে রেখেছেন এ তরুণকে। তাকে মারধর করার সংবাদ নিয়ে সবচেয়ে বেশি বিস্মিত নাঈমা নিজেই। তিনি বলেন, ‘আমি আসলে কী লিখেছে তা পড়িনি, দেখিওনি। ওর (তাসকিন) মুখে শুনে নিজের হাত পা দেখলাম, বললাম ও আমাকে কখন মারলো! কেন মানুষ এইগুলো ছড়াচ্ছে আমি জানিনা। সত্যি হলে মেনে নিতাম বা আমি নিজেই বলতাম।’ অন্যদিকে স্বামীকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে কতটা সুখে আছেন তা নিয়ে নাঈমা বলেন, ‘বিয়ে হয়েছে সাড়ে চার মাস। এর মধ্যে আমি একবার শুধু বাবার বাসাতে গিয়েছি।
সত্যি কথা বললে হয়তো আমার বাবা-মা কষ্ট পাবেন। কিন্তু এটাই সত্যি যে আমি আমার বাবার বাড়ির চেয়েও এখানে সুখে আছি। এত ভালোবাসা আমি আমার বাবার বাড়িতে পেয়েছি কিনা জানি না। চাওয়ার আগেই আব্বা-আম্মা (তাসকিনের বাবা, মা) সব হাজির করে দেন। তাই দেশবাসীর কাছে অনুরোধ করবো এসব মিথ্যা সংবাদে কান দিবেন না। আমাদের জন্য দোয়া করবেন, আমার স্বামীর জন্য দোয়া করবেন সে যেন ভালো ক্রিকেট খেলে দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনে।’ দু’জনের সম্পর্কটা কত মধুর তা নিয়ে নাঈমা বলেন, ‘ও আমাকে কী পেটাবে, আমিই তো মাঝে মাঝে ওকে দুষ্টমি করে মারি। সত্যি কথা বলতে তাসকিন মানুষ হিসেবে অনেক অনেক ভালো।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিমানবন্দরে আত্মহত্যার চেষ্টা করা রুনা বললেন আমি মরতে চাই

দুর্নীতিবাজদের নিয়ে জোট করে সরকার উৎখাতের চেষ্টা হচ্ছে

সহস্রাধিক সাইট পেজে নজরদারি

সাধারণের ভোট ভাবনা

মেজর (অব.) মান্নানকে দুদকে তলব

ডিজিটাল আইন স্বাধীন সাংবাদিকতার অন্তরায়

২৯শে সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের নাগরিক সমাবেশ

ঢাকায় বৃহস্পতিবার বিএনপি’র সমাবেশ

জগাখিচুড়ির ঐক্য টিকবে না

৫৭ ধারার মামলায় চবি শিক্ষক কারাগারে

পদ্মার ডান তীরে ভাঙন ফের আতঙ্ক

মালদ্বীপে বিরোধীদের অভাবনীয় জয়

চট্টগ্রামে গণধর্ষণের শিকার দুই কিশোরী

বিচারকের প্রতি দুই আসামির অনাস্থা

ভালো মানুষকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন: প্রেসিডেন্ট

শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার কথা বলেননি ড. কামাল