রাঙ্গুনিয়ার সাবেক সংসদ সদস্য মো. ইউসুফ আর নেই

অনলাইন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি | ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, রোববার, ৩:৪০
চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউসুফ আর নেই। আজ রোববার সকাল সাড়ে আটটার দিকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। চিরকুমার সাবেক এই সংসদ সদস্য দুই ভাই দুই বোনসহ অসংখ্য আতœীয়স্বজন রেখে গেছেন। ইউসুফের ছোট ভাই মোহাম্মদ সেকান্দর এসব তথ্য জানান।
তিনি জানান, ঢাকা থেকে মরদেহ পৌছার পর রাঙ্গুনিয়ায় গ্রামের বাড়ি মরিয়ম নগর ইউনিয়নের পশ্চিম সৈয়দবাড়ির রাঙ্গুনিয়া কলেজ মাঠে জানাজা এবং পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হবে। তবে কখন জানাজা হবে সে সময় এখনও চূড়ান্ত হয়নি।
তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আলী শাহ বলেন, সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফ একজন মুক্তিযোদ্ধা। তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হবে।

তার স্মৃতিচারণ করে মো. আলী শাহ বলেন, একসময়ের তুখোড় বামপন্থি এই নেতা ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীকে রাঙ্গুনিয়া আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এমপি হওয়ার পরেও সাধারণ মানুষের মতো দিনযাপন করতেন তিনি।
তিন ভাই-বোনের মধ্যে ইউসুফ সবার বড়। সারাজীবন রাজনীতি করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েও অর্থের লোভ তাকে আকৃষ্ট করতে পারেনি।
ব্যক্তিগত জীবনে অবিবাহিত সাবেক এই সংসদ সদস্য দীর্ঘ একযুগ ধরে দূরারোগ্য নানা রোগে ভুগছিলেন। জীবন সায়াহ্নে এসে প্যারালাইসেস রোগী হয়ে রাঙ্গুনিয়া কলেজ সংলগ্ন ছোট ভাইয়ের বাসায় অত্যন্ত কষ্টে দিন কাটে তার।
তাকে নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা হলে বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর হয়। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার চিকিৎসার ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। এরপর গত ৭ই জানুয়ারি চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের তত্ত্বা¡বধানে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।
সেখানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক টিমের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা চলাকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. অশোক কুমার দত্ত এমপি ইউসুপ মারাÍক সেফটিসেমিয়া রোগে আক্রান্ত বলে জানান। এ সময় তিনি বলেন, এমপি ইউসুফ স্ট্রোকের রোগী। তিনি প্রায় অবচেতন।
ফলে একদিন পর ৯ই জানুয়ারি তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। সেখানে এক মাস ১০ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর আজ সকালে তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন।  
ইউসুপের ছোট ভাই সেকান্দর জানান, ২০০৭ সালে মোহাম্মদ ইউসুফ হৃদরোগে আক্রান্ত হন। এ সময় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল ও উপশম হাসপাতালে চিকিৎসা করা হয়। চিকিৎসকদের প্রাণপণ চেষ্টায় মোহাম্মদ ইউসুফ প্রাণে বেঁচে যান। কিন্তু একটি মাত্র অপারেশনের অভাবে তার ডান হাত অবশ হয়ে যায়। পায়ে ঘা হয়। হারিয়ে ফেলে কথা বলার শক্তি। ফুলে যায় শরীর। হাটাচলা করে অন্যের ওপর ভর দিয়ে। কাপড় চোপড়ে মলমূত্র ত্যাগ করতেন প্রায় সময়। অভাবে খেয়ে না খেয়ে জীবন কাটিয়েছেন তিনি।
মোহাম্মদ ইউসুফ ১৯৫১ সালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মরিয়মনগর ইউনিয়নের সওদাগর পাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোহাম্মদ আলাউদ্দিন একজন কৃষক ছিলেন। মা মাসুমা বেগম ছিলেন গৃহীনি। গ্রামের স্কুল থেকে এসএসসি পাশ করার পর ঘর ছাড়েন মোহাম্মদ ইউসুফ। রাঙ্গুনিয়া কলেজে ভর্তি হয়ে হোস্টেলে থেকে পড়ালেখা করেন। যোগ দেন ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতিতে। ছাত্র ইউনিয়নের হয়ে মোহাম্মদ ইউসুফ একাধিকবার রাঙ্গুনিয়া কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি ও জিএস নির্বাচিত হন।
১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নেন তিনি। যুদ্ধের পর ১৯৭৩ সালে রাঙ্গুনিয়া কলেজ থেকে ¯œাতক ডিগ্রী পাশ করে কর্ণফুলী পাটকলের করণিক পদে চাকুরি লাভ করেন। সেখানে তিনি কমিউনিষ্ট পার্টির রাজনীতি শুরু করেন। শ্রমিক নেতা হিসেবে তিনি শ্রমিকের ভোটে কর্ণফুলী পাটকলে একাধিকবার সিবিএর সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন। ৯০‘র এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের পর ৯১ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৮ দলীয় জোটের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে মনোয়ন লাভ করেন তিনি।
এ নির্বাচনে নৌকা প্রতিক নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর কমিউনিষ্ট পার্টি থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। সংসদ থেকে ফিরে এসে রাঙ্গুনিয়ার বহুদাবিভক্ত আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেন তিনি। মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে তিনি এতটাই জড়িয়ে পড়েন যে সংসার জীবন গড়ে তোলার কথাও ভুলে যান। এমনকি তিনি কোন সময় নিজের শরীরের যতœ পর্যন্ত নেননি। ফলে মাত্র ৫৫ বছর বয়সে নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। 



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

স্থায়ী কমিটির বৈঠকে জাতীয় ঐক্যের পর্যালোচনা করেছে বিএনপি

ভারতের কাছে পাত্তাই পেল না পাকিস্তান

ঐক্যের কর্মসূচি পর্যবেক্ষণ করছে আওয়ামী লীগ

ইতিবাচক অগ্রগতি দেখছে বিএনপি

সুধীজনদের সঙ্গে বৈঠকে বসছে ঐক্যপ্রক্রিয়া

কাল্পনিক মামলার তদন্তে কমিশন চেয়ে হাইকোর্টে রিট

আফগানদের বিপক্ষে লড়াকু ব্যাটিং

ঐক্য ভাঙবে না আরো অনেকে যুক্ত হবে

গাজীপুরে শ্রমিক বিক্ষোভ অবরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ, টিয়ার শেল

বাবা ডেকেও রেহাই মেলেনি লুৎফার

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি ড. কামালের

আওয়ামী লীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না

বাড়ছে হৃদরোগ, আক্রান্ত হচ্ছে যুবকরাও

দুই বন্দরে ঘুষ ছাড়া সেবা মেলে না

কথিত বাংলাদেশি অভিবাসীদের ‘উইপোকা’ বললেন অমিত শাহ

সংঘাত এড়াতে চট্টগ্রাম কলেজের নিয়ন্ত্রণ নিল পুলিশ