সৌদি নারীদের বোরকা পরতে হবে না বলে শীর্ষ ধর্মীয় নেতার ফতোয়া

বিশ্বজমিন

| ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, রোববার
সৌদি আরবের একজন শীর্ষ ধর্মীয় নেতা বলেছেন, সেদেশে মেয়েদের 'আবায়া' বা বোরকা পরতেই হবে এমন কোন ব্যাপার নেই। মেয়েদের আব্রু বজায় রেখে পোশাক পরতে হবে, কিন্তু তার মানে এই নয় যে তাদের আবায়া পরতে হবে।
সৌদি আরবে মেয়েরা পা পর্যন্ত পুরো শরীর ঢেকে রাখা যে ঢিলেঢালা আচ্ছাদন ব্যবহার করে, তাকে আবায়া বলে। সেখানে আবায়া না পরে বাইরে যেতে দেখা যায় কম মহিলাকেই। সেখানে এটি পরা আইনত বাধ্যতামূলক।
কিন্তু সৌদি আরবের 'কাউন্সিল অব সিনিয়র স্কলারস' বা সবচেয়ে বয়েজ্যোষ্ঠ ধর্মীয় চিন্তাবিদদের কাউন্সিলের সদস্য শেখ আবদুল্লাহ আল মুতলাক বলেছেন, এটার দরকার নেই।
সৌদি সমাজে যখন নানা রকম সংস্কারের চেষ্টা চলছে, তখনই একজন শীর্ষ ধর্মীয় নেতা এ ধরণের একটি ধর্মীয় ব্যাখ্যা হাজির করলেন।
শেখ আবদুল্লাহ আল মুতলাক শুক্রবার বলেন, "মুসলিম বিশ্বের ৯০ শতাংশ মহিলাই 'আবায়া' পরেন না। কাজেই আমাদেরও উচিৎ হবে না মেয়েদের এটা পরতে বাধ্য করা।"
সৌদি আরবে এই প্রথম এরকম উচ্চ পদের কোন ধর্মীয় নেতার মুখে এরকম কথা শোনা গেল।তাঁর এই মন্তব্য ঘিরে ইতোমধ্যে অনলাইনে তীব্র বিতর্ক এবং আলোচনা শুরু হয়েছে। অনেকেই তার সমর্থনে কথা বলছেন। বিরোধিতাও করছেন অনেকে।
টুইটারে মাশারি ঘামদি নামে একজন লিখেছেন, "আবায়া আমাদের অঞ্চলের একটা ঐতিহ্য। এটি োন ধর্মীয় ব্যাপার নয়।"
তবে আরেকজন তীব্র বিরোধিতা করে লিখেছেন, "যদি একশো ফতোয়াও জারি করা হয় তারপরও আমি আামার আবায়া ছাড়বো না।
মরলেও না। হে মেয়েরা, তোমরা এই ফতোয়ায় কান দিও না।"
সৌদি আরবে মেয়েরা যখন আবায়া না পরে বাইরে যায়, তখন অনেক সময় ধর্মীয় পুলিশ তাদের এসে ভর্ৎসনা করে।
২০১৬ সালে রিয়াদের রাস্তায় এক মহিলা তার আবায়া খুলে ফেলার পর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।
তবে সাম্প্রতিক বছরগুলিতে সৌদি আরবে মেয়েদের কেবলমাত্র কালো রঙের আবায়ার পরিবর্তে আর বিভিন্ন উজ্জ্বল রঙের আবায়া পরতে দেখা যায়। লম্বা স্কার্ট বা জিন্সের সঙ্গে খোলা আবায়া পরাও বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আধুনিক তরুণীদের মধ্যে।
সৌদি আরবে গত কিছুদিন ধরেই পরিবর্তনের হাওয়া বইছে।
গত বছর সেখানে বাণিজ্যিক সিনেমার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়। এ বছরের মার্চে সেখানে প্রথম সিনেমা হল খুলবে।
গত ডিসেম্বরে সেখানে প্রথম কোন গানের কনসার্টে মহিলা সঙ্গীত শিল্পীকে গান গাইতে দেখা গেছে।
সৌদি আরবে স্টেডিয়ামে গিয়ে মেয়েদের খেলার দেখারও অনুমতি দেয়া হয়েছে।

সূত্রঃ বিবিসি



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

রবিউল ইসলাম ভুঁইয়া/k

২০১৮-০২-১১ ০৯:২০:৫১

বোরকা বা আবায়া মুসলিম মহিলাদের পর ফরজ করা হয়েছে।আল্লাহ তাআলা কোরআনে ক্পাকে সুরা নিসায় এ ব্যাপারে বলেছে,হে মহিলা গণ তোমরা তোমাদের বুক ঢেকে রাখ এবং মাথা আবৃত কর।

খুর্শিদুল অালম

২০১৮-০২-১১ ০৪:৪০:৪২

এই মুফতী পশ্চিমা বিশ্বের এজেন্ট। তাই তাকে কঠিনভাবে দমন করতে হবে।

ইমদাদুল হক

২০১৮-০২-১১ ০৩:৫৩:১৬

উনি তো দরবারী মুফতি অতএব তার ফতোয়া মানা যাবে না

kazi

২০১৮-০২-১১ ০৩:৪৮:৪৫

ইসলামধর্ম সহ অন্যান্য ধর্ম পৃথিবীতে বিস্তার হয়েছে আরব দেশ থেকে।মুসলিমরা আরবের অনেক পোশাক ও সামাজিক আচার আচরণকে অনুসরণ করে আদর্শ মনে করে যদিও ধর্মীয় আদেশ নয়। বোরখা এদের মধ্যে একটি পোশাক । পুরুষের লম্ভা কুর্তা পাগড়ি তদ্রুপ । আরবে এসব পোশাক ব্যবহৃত হয় তাদের দেশের আবহাওয়া ও ব্যবহারের সুবিধা থেকে। গরম আবহাওয়া, লু হাওয়ার সময় বালির ঝড় তাদের পোশাক নির্বাচনে প্রভাব পেলেছে। পাগড়ি বা মাথায় পুরুষের ব্যবহৃত রুমাল তার উদাহরণ । বোরখা ছাড়া যদি আপাদমস্তক অন্য পোশাক ব্যবহার করে মহিলারা আব্রু রক্ষা করতে পারে বোরখা বাধ্যতামূলক নয়। কিন্তু বোরখা সুবিধাজনক সবচেয়ে বেশি যা বাতাস উড়িয়ে নিতে পারে না।

মোঃ মাহবুবুর রহমান

২০১৮-০২-১১ ০৩:১৪:২২

কিয়ামত যে অতি সন্নিকটে এসব তারই আলামত !

আপনার মতামত দিন

মি-টু আন্দোলনের মুখে এম জে আকবরের পদত্যাগ

নীতিমালা নেই অ্যাপস চালুর চিন্তা

সিলেট, চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে সমাবেশের তারিখ চূড়ান্ত করেছে ঐক্যফ্রন্ট

দুই উইকেট পড়ে গেছে আরো পড়বে

সক্ষমতা সূচকে পেছালো বাংলাদেশ

দুর্গাপূজায় সেই নাসিরনগর

কারাগারে থেকেই দুই পুরস্কার

গ ইউনিটে ফেল ঘ ইউনিটে প্রথম!

বিএনপি’র ভরসা ভোটার আওয়ামী লীগের উন্নয়ন

জিপ্লেক্স’র মাধ্যমে আরো উন্নত কন্টাক্ট সেন্টার গড়লো রবি

চ্যারিটেবলের রায় আগে লেখা হয়েছে: নজরুল

বিবেকের অনশন

মাহবুব তালুকদারের পদত্যাগ চায় ১৪ দল

নরসিংদীর জঙ্গি আস্তানায় অভিযান ২ নারীর আত্মসমর্পণ

‘অনু মালিক তাকে চুমু দিতে বলেছিলেন’

মাহবুব তালুকদারের প্রস্তাব সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক: কবিতা খানম