তাঁকে শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে পাস করে এসে যোগ্যতার প্রমাণ রাখতে হয়

ফেসবুক ডায়েরি

আহমেদ তানভীর | ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:২৬
আমাদের দেশের রাজনৈতিক সরকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে এ দেশের জন্মলগ্ন থেকে কখনোই শিক্ষা বা গবেষণার পীঠস্থান হিসেবে দেখেনি। তারা এটিকে দেখেছে রাজনৈতিক পেশিশক্তি প্রদর্শনের অন্যতম জায়গা হিসেবে। তাদের কাছে হিসাব অত্যন্ত সোজা। যেকোনো আন্দোলন, রাজনৈতিক বা অরাজনৈতিক হোক, সেটি গড়ে ওঠে এবং বেগবান হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে। তাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে ঠান্ডা রাখতে পারলে অনেকখানি নাকে তেল দিয়ে ঘুমানো যায়। এই রাজনৈতিক পেশিশক্তির আঁধারকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে প্রথমে যেটি দরকার, সেটি হলো ক্ষমতায় থাকা রাজনৈতিক শক্তির একান্ত অনুগত একজন ব্যক্তি।
বেশির ভাগ সময়ে তাঁকে আনুগত্যের পরীক্ষা দিতে হয় দলীয় শিক্ষকদের নেতৃত্ব দিয়ে এবং তাঁর নেতা হওয়ার যে ক্ষমতা আছে, সেটির প্রমাণ দিয়ে। সে ক্ষেত্রে তাঁকে শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে পাস করে এসে যোগ্যতার প্রমাণ রাখতে হয়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আবহাওয়া সুবিধার বলে মনে হচ্ছে না: হাসান সরকার

রাম মন্দির নির্মাণ, গরু রক্ষা বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠন নিয়ে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ৩ দিনের বৈঠক

প্রকাশ্যে সৌদি আরবে গাড়ি চালালেন নারীরা

সানগ্লাসের জন্য কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোকে জরিমানা

চট্টগ্রামে জামায়াত নেতা ভেবে ভুল ব্যক্তিকে আটক

কর্ণফুলী কলেজের ডরমেটরিতেও অসামাজিক কার্যকলাপ!

ফিফার বিরুদ্ধে ডাকাতির অভিযোগ সার্বিয়ার

মেক্সিকোতে ফূটবল দর্শকদের ওপর গুলিতে নিহত ১৪

বৃটেনের রাজপথে লাখো মানুষের বিক্ষোভ

শাহজালালে স্বর্ণের বারসহ বিদেশী নাগরিক আটক

বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া ছাড়া চীনেও পোশাক শ্রমিকদের ওপর যৌন হয়রানি

সিরাজগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুমিল্লার এক মামলায় খালেদার জামিন বিষয়ে আদেশ ২রা জুলাই

বিকালে সংবাদ সম্মেলন করবে বিএনপি

যশোরে দুই যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে প্রচারণা, নেমেছে বিজিবি