তীব্র শীতের মধ্যেও চলছে অনশন কর্মসূচি অসুস্থ ১০৬

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, শনিবার
 স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের আন্দোলন থেকে ফেরানো গেলেও এবার জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন এমপিওভুক্ত (বেতনের সরকারি অংশ পাওয়া) বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষকেরা। জাতীয়করণের দাবিতে গত ১লা জানুয়ারি থেকে লাগাতার অবস্থান ধর্মঘট পালন করার পর ৯ই জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করেছেন ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকেরা।
 ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের সংগঠন বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষক সমিতির আয়োজনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে গতকাল চতুর্থ দিনের মতো আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছেন শত শত মাদরাসা শিক্ষকেরা। তীব্র শীতে জবুথবু শিক্ষকের অনেকেই কম্বল মুড়িয়ে শুয়ে  পালন করছেন অনশন কর্মসূচি। টানা চারদিনের অনশনে এখন পর্যন্ত অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ১০৬ জন মাদরাসা শিক্ষক। অসুস্থার কারণে অনেক শিক্ষকই শরীরে স্যালাইন টানিয়েও পালন করছেন কর্মসূচি। মোতাহের হোসেন নামে  এক অসুস্থ শিক্ষক বলেন, বেতন-ভাতা না পেয়ে দেশের সকল ইবতেদায়ি শিক্ষকেরা খুব মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
তিনি বলেন, যেখানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য দিন দিন আকাশছোঁয়া হয়ে পরছে, সেখানে নুন আনতে পান্তা ফোরানো বেতনহীন চাকরিতে জীবন চালাতে হিমশিম খাচ্ছি আমরা। মাদরাসা শিক্ষকেরা জীবনের তাগিদে শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়েই দাবি আদায়ে রাস্তায় নেমেছে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, ধুঁকে ধুঁকে মরার চেয়ে একবারে মরাই ভালো। এজন্য এই শীতে মরে যাবে তবুও দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরবো না বলেও হুঁশিয়ারি দেয় এই অসুস্থ মাদরাসা শিক্ষক।
এ বিষয়ে সংগঠনের সভাপতি কাজী রুহুল আমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট আশ্বাস ছাড়া আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। প্রয়োজনে আমরা প্রাণ দেবো তবু আন্দোলন থামাবো না। তিনি বলেন, ১৯৯৪ সালে জারি হওয়া একটি পরিপত্রে রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন ৫শ’ টাকা নির্ধারণ করা হয়। পরবর্তীতে বিগত সরকারগুলোর আমলে ধাপে ধাপে বেতন বাড়তে থাকে। কিন্তু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মতো বেতন বাড়েনি ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের। তিনি আরো বলেন, ২০১৩ সালের ৯ই জানুয়ারি বর্তমান মহাজোট সরকার ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাইমারি স্কুল জাতীয়করণ করে। ইবতেদায়ি মাদরাসাতেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো সরকারি একই সিলেবাসে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হয়। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো ইবতেদায়ি মাদরাসার শিক্ষার্থীরাও সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়। প্রাথমিকের শিক্ষকেরা অনেক টাকা বেতন পান। অথচ ১ হাজার ৫১৯টি ইবতেদায়ি মাদরাসার প্রধান শিক্ষক ২ হাজার ৫শ’ টাকা, সহকারী শিক্ষক ২ হাজার ৩শ’ টাকা ভাতা পান। এটা সম্পূর্ণ অমানবিক ও শিক্ষকদের অবমাননা করার শামিল।
ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন এমপিওভুক্ত (বেতনের সরকারি অংশ পাওয়া) বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ শিক্ষকেরা। বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামের আহ্বানে তৃতীয় দিনের মতো জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন তারা। শনিবারের মধ্যে দাবি না মানা হলে পরদিন থেকে আমরণ অনশনে যাওয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা। এ বিষয়ে লিয়াজোঁ ফোরামের নেতা সাইদুল ইসলাম বলেন, শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ হলে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধি পাবে। ছাত্রছাত্রীদের বেতন দিয়ে পড়তে হবে না। ফলে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে মানসম্মত শিক্ষা ছড়িয়ে দেয়া সহজ হবে। আর এ কারণেই এই আন্দোলন করছেন তারা। সংগঠনটির উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির একাংশের সভাপতি নজরুল ইসলাম রনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে দাবি পূরণের ঘোষণা না আসা পর্যন্ত তারা এ কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলেও জানান এই শিক্ষক নেতা। তিনি বলেন, আগামী ১৩ই জানুয়ারি পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে। এ সময়ের মধ্যে দাবি না মানা হলে পরদিন থেকে আমরণ অনশনে যাবেন তারা।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ছয় মামলায় রিপনের জামিন

চাঁদাবাজির অভিযোগে দুই পুলিশ বরখাস্ত

এসএসসি পরীক্ষা চলাকালীন বন্ধ থাকবে ফেসবুক

ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকাকে অনেক পিছনে ফেলেছে বাংলাদেশ

মেয়রের বাড়িতে হামলার মামলায় ১০ আসামি কারাগারে

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুই কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত

নারায়ণগঞ্জের থানায় আইভীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমুর গ্রেপ্তার

বলিউড ছবি নিয়ে ভারতে তোলপাড়, নিষেধাজ্ঞা নেই-সুপ্রিম কোর্ট

‘আমি আমার শহরের লিডার’

চকবাজারে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

ভারতে স্বামীর সামনে স্ত্রীকে ধর্ষণ

দেশীয় অস্ত্রসহ আটক ৯ ডাকাত

রাজধানীতে মা-মেয়ের ‘আত্মহত্যা’

'যত বেশি সম্ভব মুসলিম মারতে চেয়েছি'

সিএনজি চালক হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ২