জার্মানির জোট সরকার গঠন আলোচনায় প্রাথমিক সফলতা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, শনিবার
জার্মানির রাজনীতিবিদরা জোট সরকার গঠন করা বিষয়ক আলোচনায় প্রাথমিক সফলতা অর্জন করেছেন। ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটস (সিডিইউ) ও তাদের সাবেক জোট সহযোগী সোশ্যাল ডেমোক্রেটের (এসপিডি) দল প্রধান ও তাদের সদস্যরা জোট গঠনের আনুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু করার একটি নীতিগত চুক্তিতে পৌঁছেছে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি ও বিবিসি।
খবরে বলা হয়, বার্লিনে অনুষ্ঠিত আলোচনায় মার্কেল ও তার সিডিইউ, সিএসইউ-এর হোর্স্ট সিহোফার ও এসপিডি প্রধান মার্টিন শুলজ একটি ২৮ পৃষ্ঠা লম্বা সমঝোতা পরিকল্পনার ওপর ভিত্তি করে আলোচনা এগিয়ে নিতে সম্মত হন। ওই সমঝোতা পরিকল্পনা অনুসারে, তিন পক্ষ গুরুত্বপূর্ণ নীতিমালা নিয়ে আলোচনা করবেন। সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, জার্মানির ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) সহযোগী ফ্রান্সকে ইইউয়ের সদস্যসংখ্যা ১৯ দেশে নামিয়ে আনতে চাপ দেয়া, জার্মানিতে আশ্রয়প্রার্থীদের ঢল বছরে ২ লাখের মধ্যে সীমিত করে দেয়া, রাষ্ট্রীয় অর্থ-ভাণ্ডারের অবস্থা ভালো থাকলে ট্যাক্স বৃদ্ধি সংযত রাখা। মার্কেল ও শুলজ বৃহস্পতিবার তাদের সামনে বেশ বড় বাধা আছে- এটা জেনেই আলোচনায় বসেন।
কারণ, তারা এটাও জানতেন যে, এই আলোচনার ওপর তাদের রাজনৈতিক জীবন নির্ভর করছে। ডুইসবার্গ-এসেন ইউনিভার্সিটির কার্ল-রুডলফ কর্তে বলেন, এটা শুধুই জোট গঠনের আলোচনা নয়, এটা তাদের ক্যারিয়ার নিয়েও আলোচনা। এই আলোচলা থেকে কোনো জোট গঠন না হলে এটাই হবে ওই তিনজনের রাজনীতিক জীবনের ইতি।
তবে প্রাথমিক চুক্তি সম্পন্ন হলেও, যেকোনো মুহূর্তে আলোচনা ভেস্তে যাওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। আলোচনা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার জন্য সংশয়ী এসপিডি প্রতিনিধিদের ভোটের প্রয়োজন হবে। পাশাপাশি দলের সদস্যরা অপর একটি মহাজোট গঠনের জন্য বর্তমান পরিকল্পনার বাস্তবায়ন পিছিয়ে দিতে পারে। গত ২৪শে সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে মার্কেল বড় ধরনের ব্যবধানে জয়ী হননি, নিশ্চিত করতে পারেননি স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা। এজন্য অল্টারনেটিভ ফর জার্মানি’র (এএফডি) মতো উগ্র ডানপন্থি দলগুলোর মধ্যে অভিবাসনবিরোধী মতবাদের উত্থানকে দায়ী করছেন অনেকে। কেননা, অভিবাসনবিরোধী প্রচারণা চালিয়ে বেশ কয়েক লাখ ভোট নিজের ঝুড়িতে ভরেছে এএফডি। মার্কেল প্রাথমিকভাবে দুটি ছোট দলের সঙ্গে জোট গঠন করতে ব্যর্থ হন। চ্যান্সেলর হিসেবে এটা তার চতুর্থ দফা। আর সরকার গঠনের জন্য অন্য দলের সঙ্গে তার জোট গঠন আবশ্যক। কিন্তু নভেম্বরে দ্য গ্রিনস ও ফ্রি ডেমোক্রেটসদের সঙ্গে আলোচনা ভেস্তে যাবার পর অনিচ্ছুক এসপিডির সঙ্গে নতুন করে জোট সরকার গঠনের আলোচনায় নামতে হয়েছে তাকে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন