ফুলকপির হাট

বাংলারজমিন

মো: শাহাজাহান চৌধুরী, পটিয়া (চট্টগ্রাম) থেকে | ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, শনিবার
সকাল ভোর ৫টা। কাঁধে ভার করে একে একে কৃষক ক্ষেত থেকে ফুলকপিসহ নানান রকমের শীতকালীন সবজি নিয়ে পটিয়া উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নের দারোগা হাটে আসতে শুরু করে। ওই হাটের জায়গা ছাড়িয়ে কৃষকের ফুলকপির ভার রাস্তায় পর্যন্ত চলে যায়। পাইকারী ক্রেতারা এখান থেকে কিনে নিয়ে চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন বাজারে খুচরা বিক্রী করে থাকেন। তবে কৃষকের অভিযোগ, পাইকারি ফুলকপিসহ সবজি ক্রেতারা সিন্ডিকেট করার কারণে কৃষকরা ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। উপজেলার হাইদগাঁও, কেলিশহর, কচুয়াই ও খরনা পাহাড়ি ও সমতল এলাকায় চাষাবাদ করা ফুলকপি ও বাঁধাকপি এবার বাম্পার ফলন হয়েছে।
এখান থেকে পাইকারি ক্রেতারা কিনে নিয়ে তা বিভিন্ন জায়গায় খুচরা দামে বিক্রি করছে। কেলিশহর দারোগা হাটে ফুলকপি ছাড়াও বাঁধাকপি, বেগুন, মুলা, ধনিয়া পাতা, লাউসহ বিভিন্ন শীতকালীন সবজির রমরমা ব্যবসা চলে।      
সরেজমিন ঘুরে কৃষকের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নের খিল্লাপাড়া, ইন্ন্যার পাড়া, দীঘির উত্তর পাড়, বজলুল রহমানের বাড়ির পূর্ব পাশে, ছত্তরপেটুয়া, গোপালপাড়া, বড়–য়ার টেক, সেনপাড়াসহ আশপাশের এলাকায় কৃষকরা এবারও সবজি চাষ করেছে। প্রাকৃতিক আবহাওয়া ও অকালে মেঘ করার কারণে কৃষক কম দামে ফুলকপি ও বাঁধাকপি বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে। তাছাড়া কেলিশহর এলাকার একমাত্র পাইকারি বাজার দারোগা হাট। কেলিশহর ইউনিয়নের ৮০% মানুষ কৃষক। ফলে সকাল থেকে দিনভর এলাকার কৃষকরা ক্ষেতে ব্যস্ত থাকেন। পটিয়া উপজেলা কৃষি অফিস প্রায় সময় কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কেলিশহর খিল্লাপাড়া এলাকার কৃষক আবদুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, তিনি চলতি মওসুমে ৬০ শতক জায়গায় বাঁধাকপি, ফুলকপি ও বেগুন চাষাবাদ করেছেন। এবার বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে প্রাকৃতিক সমস্যা ও পাইকারি ক্রেতাদের সিন্ডিকেটের কারণে ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন না। কারণ হিসেবে তিনি মনে করেন, পটিয়ায় হিমাগার না থাকার কারণে কৃষকরা ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না। পটিয়ায় একটি হিমাগার থাকলে কেলিশহর ছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকরা উপকৃত হতেন।
পটিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রঘুনাথ নাহা বলেন, উপজেলার কেলিশহরসহ কয়েকটি ইউনিয়নে সবজি ক্ষেতের বাম্পার ফলন হয়েছে। চলতি মওসুমে কেলিশহর, হাইদগাঁও, কচুয়াই, খরনাসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে প্রায় ১২০০ হেক্টর জমিতে সবজির ফলন হয়েছে। সব জায়গায় সবজির বাম্পার ফলনের কারণে মূলত কৃষকরা দাম পায় না।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কলেজে এসকেলেটর বিলাস, ৪৫৪ কোটি টাকার প্রকল্প

ইইউয়ে পোশাক রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি ধরে রেখেছে বাংলাদেশ

ফাইনালে বাংলাদেশ হাথুরুকেও জবাব

আইভীর অবস্থা স্থিতিশীল, দেখতে গেলেন কাদের

শামীম ওসমানের বক্তব্যে তোলপাড় নানা প্রশ্ন

বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন ‘সভাপতি হলে তুই মাত করে দিবি’

চট্টগ্রামে বেপরোয়া অর্ধশত কিশোর গ্যাং

তুরাগতীরে লাখো মুসল্লির জুমার নামাজ আদায়

দু’দলের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা

পিয়াজের কেজি এখনো ৬৫-৭০ টাকা

নির্বাচন চাইলে সরকার আপিল বিভাগে যেতো

‘বাংলাদেশ ক্রমেই সংকুচিত হয়ে আসছে’

‘শাসকগোষ্ঠীর নির্মম শিকলে বন্দি মানুষ’

ফেনীতে সাড়ে ১৩ হাজার ইয়াবাসহ আটক ১

ছেলেকে হত্যার পর মায়ের স্বীকারোক্তি

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী নিখোঁজ