ছাড়পত্র পাচ্ছেন আল আমিন

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১২ জানুয়ারি ২০১৮, শুক্রবার
আবারও বৈধ বোলিং অ্যাকশনের ছাড়পত্র পেতে যাচ্ছেন আল আমিন হোসেন। বিষয়টি দৈনিক মানবজমিনকে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) মিডিয়া ও বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। সদ্য সমাপ্ত বিপিএল’র ৫ম আসরে এ পেসারের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে রিপোর্ট দিয়েছিলেন আম্পায়াররা। বিপিএল শেষ হতেই ঘরের ক্রিকেটে তিনি নিষিদ্ধ হয়ে যান। তবে বসে থাকেননি তিনি। তার দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ সালাউদ্দিনের কাছে টানা ২৮ দিন কাজ করার পর রোববার মিরপুরে বিসিবি’র একাডেমি মাঠে অ্যাকশনের পরীক্ষা দেন।
কথা ছিল এক সপ্তাহের মধ্যে তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। তবে গতকাল তার অ্যাকশনের ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা শেষে তাকে ছাড়পত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ বিষয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘আল আমিন ২৮ দিন কাজ করেছে বিসিবিতে। অনেক পরিশ্রম করেছে নিজেকে শুধরে ফিরে আসতে। তার পরীক্ষার ভিডিও ফুটেজ আমরা দেখেছি। অনেক উন্নতিও করেছে বোলিংয়ে দেখে তা মনে হলো। বায়োমেকানিক্যাল বেশকিছু পরিবর্তনও এসেছে। ওকে দ্রুতই ছাড়পত্র দেয়া হবে। এমনকি ওর চলতি বিসিএল ও ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগেও খেলতে সমস্যা নেই।’
এ সংবাদে বেশ উচ্ছ্বসিত পেসার আল আমিন হোসেন। মুঠোফোনে তিনি বলেন, ‘ছাড়পত্র কি পাচ্ছি আমি? আল্‌হামদুলিল্লাহ্‌। শুনে ভালো লাগলো। সত্যি কথা বলতে কি যখন বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে তখন থেকেই আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে, পরীক্ষা দিলে কোনো সমস্যা পাবেন না তারা। আমি জানতাম যে, আমি বৈধ হবোই।’ এর আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের কারণে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। ফিরেছেন পরীক্ষা দিয়ে। আবার যদি ঘরোয়া ক্রিকেটে তার অ্যাকশন নিয়ে কোনো প্রশ্ন উঠে তাহলে নিষিদ্ধ হবেন একবছরের জন্য। সেটির কথা ভেবে আল আমিন বলেন, ‘আমি এখন থেকে নিজের প্রতি বাড়তি খেয়াল রাখবো- যেন এমন কোনো কিছু আর না হয়। কারণ এটি আমার ক্যারিয়ারের বিষয়।’
বিকেএসপিতে কোচ সালাউদ্দিনের সঙ্গে কাজ করেছেন নিরলসভাবে। আল আমিন বলেন, ‘আমার বিশ্বাস-  কঠোর পরিশ্রম করলে ফল পাওয়া যায়। এতে করে আমার বেশকিছু সুবিধা হয়েছে। যেমন সালাউদ্দিন স্যারের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে আমার সুইংয়ের উন্নতি হয়েছে। বোলিংয়ে স্টেপ একটা বড় বিষয়। সেটিরও বেশ উন্নতি হয়েছে। ছোট ছোট কিছু ভুল ছিল সেগুলোরও সমাধান করতে পেরেছি। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো আমার পেসের গতি আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে।’
অভিযোগ রয়েছে মাঠে ক্যামেরা ব্যবহার না থাকাতে অনেক বোলারই ইচ্ছা করে অবৈধ অ্যাকশনে দুই একটি বল করে সুবিধা নিতে চায়। অনেক সময় সেটি আম্পায়ারদেরও দৃষ্টিতে আসে না। আবার রিপোর্ট দিলে নিষিদ্ধ হওয়ার পর এক পরীক্ষাতেই পাস করে বের হয়ে যান তারা। এ বিষয়গুলো ঠেকাতে বিসিবি’র বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটি বাড়াতে যাচ্ছে প্রযুক্তির ব্যবহার। এ নিয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমরা অবৈধ বোলিং অ্যাকশন আর মাঠে ইচ্ছাকৃত চাকবল ঠেকাতে আরো উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এবার ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগই নয়, প্রথম বিভাগ ক্রিকেটেও ব্যবহার করা হবে ক্যামেরা। তবে যেন সঠিকভাবে ত্রুটি ধরতে পারে, সেজন্য এবার বাড়ানো হবে ক্যামেরার সংখ্যাও।’ বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটি কার্যক্রম চালু করার পর বোলারদের চাকিংয়ের প্রবণতায় কতটা প্রভাব পড়েছে তা নিয়ে বিসিবি’র এ পরিচালক বলেন, ‘অনেক সতর্ক এখন বোলাররা। তারা ভালো করেই জানে তৃতীয় বিভাগ থেকে শুরু করে ঘরোয়া প্রতিটি লীগে কড়া নজর রাখা হচ্ছে। আইনও করা হয়েছে কঠিনভাবে। খুব ভালো করেই জানে বোলাররা এমন কিছু করলেই তারা নিষিদ্ধ হবে। আর একটা বিষয় আমরা কাজও করছি। এতে করে যারা সন্দেহের তালিকাতে এসেছে তার অ্যাকশন শুধরাতে পেরেছে।’

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আইভীকে হাসপাতালে দেখে আসলেন ওবায়দুল

তিস্তা কূটনীতিতে চোখ ঢাকার

শাহজালালে বৈদেশিক মুদ্রাসহ দুই যাত্রী আটক

দারুণ শুরু বাংলাদেশের

ভারতের সুপ্রিম কোর্টে ফেলানী হত্যার রিট শুনানি ফের পেছালো

যশোরে বিএনপি নেতা অমিতের বক্তব্যে তোলপাড়

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু

‘বিষয়টি নিয়ে আমি বেশ উত্তেজিত’

পাঁচ দশকের দীর্ঘ লড়াই

ভিডিও দেখে অস্ত্রধারীদের খোঁজা হচ্ছে

‘অতিষ্ঠ হয়ে প্রেমিককে ছুরিকাঘাত’

ফল প্রকাশের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, অবরোধ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সময় লাগবে ৯ বছর!

মত প্রকাশের স্বাধীনতা সীমিত, আক্রমণের শিকার নাগরিক সমাজ

মেয়র আইভী হাসপাতালে

জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মবার্ষিকী আজ